এক-একটি গ্রুপে অ্যাড করা যাবে সর্বোচ্চ ৫১২ জনকে, শীঘ্রই WhatsApp আনছে নতুন ফিচার

এবার WhatsApp গ্রুপের মেম্বার সংখ্যা দ্বিগুণ বাড়াতে এখন নতুন আপডেটের ওপর কাজ করছে সংস্থা। এছাড়া এসেছে বা আসছে আরো নতুন অনেক ফিচারও।

হাতে স্মার্টফোন রয়েছে অথচ তাতে WhatsApp (হোয়াটসঅ্যাপ) নেই, এমনটা আজকাল আর ভাবাই যায় না। বরঞ্চ জনপ্রিয় এই মেসেজিং অ্যাপটির মাধ্যমে প্রতিদিন কোটি কোটি মেসেজ, ছবি, ও ভিডিও আদানপ্রদান হয়। আবার পরিচিতদের সঙ্গে দরকারি চ্যাট, গল্পগুজব, কিংবা নিছক আড্ডা – যেকোনো যোগাযোগের ক্ষেত্রেই Meta (মেটা) মালিকানাধীন বিশ্বের সর্বাধিক জনপ্রিয় এই ইন্সট্যান্ট মেসেজিং প্ল্যাটফর্মটি আজকাল প্রাথমিক মাধ্যম হয়ে উঠেছে। সেক্ষেত্রে একযোগে অনেকজন মিলে জমিয়ে চ্যাট করার জন্য বর্তমানে অনেকেই তৈরি করে ফেলেন নিজেদের পছন্দের মানুষদের নিয়ে এক-একটা WhatsApp গ্রুপ (Group)।

বন্ধুদের গ্রুপ, অফিসের কলিগদের গ্রুপ, কিংবা পরিবারের সদস্যদের গ্রুপ – আজকাল প্রায় সবার ফোনেই এই ধরনের আলাদা আলাদা গ্রুপের হদিস মেলে, যেখানে দিনরাত অগুনতি মেসেজের আদানপ্রদান চলতে থাকে। এদিকে এতদিন পর্যন্ত একটি গ্রুপে সর্বোচ্চ ২৫৬ জন মেম্বারকে সংযুক্ত করার সুযোগ দিত হোয়াটসঅ্যাপ। অর্থাৎ, যদি কোনো গ্রুপের মেম্বারের সংখ্যা ২৫৬-এর চেয়ে বেশি হয়ে যায়, তাহলে সেক্ষেত্রে ব্যবহারকারীদের আবার অন্য একটি গ্রুপ তৈরি করতে হতো। তবে এই সমস্যার সমাধান করতে এবার একটি নতুন ফিচার আনতে চলেছে হোয়াটসঅ্যাপ।

সম্প্রতি Android Police-এর রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে যে, এবার ২৫৬ জনের পরিবর্তে একটি গ্রুপে মোট ৫১২ জন মেম্বারকে অ্যাড করা যাবে। অর্থাৎ, এক ছাতার তলায় আরও বেশি সংখ্যক মানুষের সমাগমে এবার এক জোরদার চ্যাটিংয়ের পরিবেশ সৃষ্টি করতে ইউজারদেরকে ব্যাপকভাবে সাহায্য করবে এই জনপ্রিয় ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং প্ল্যাটফর্মটি। নিঃসন্দেহে সকল ইউজারদের কাছেই এই ফিচারটি অত্যন্ত সুবিধাজনক হবে। তবে এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, হোয়াটসঅ্যাপের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী Telegram (টেলিগ্রাম)-এর তুলনায় কিন্তু এই মেম্বারের সংখ্যা খুবই কম। কেননা টেলিগ্রামে একটি গ্রুপে দু-লক্ষ ইউজারকে অ্যাড করা যেতে পারে, যার তুলনায় ২৫৬ সংখ্যাটি নেহাতই নগণ্য৷ তবে নতুন এই ফিচারের আগমনে হোয়াটসঅ্যাপ ইউজাররা যে বেশ খুশি হবেন, সেকথা বলাই বাহুল্য।

WhatsApp আনছে এই ফিচারটিও

এর পাশাপাশি খুব শীঘ্রই হোয়াটসঅ্যাপে আর-একটি দুর্দান্ত ফিচার আসতে চলেছে। আসলে সংস্থাটি সম্প্রতি জানিয়েছে যে, খুব শীঘ্রই এই মেসেজিং প্ল্যাটফর্মে বড়োসড়ো সাইজের ফাইল (২ জিবি পর্যন্ত) শেয়ার করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। এখনও পর্যন্ত এই প্ল্যাটফর্মে ভিডিও, ভয়েস মেসেজ এবং ফটোর জন্য সর্বাধিক ১৬ এমবির ফাইল শেয়ার করা যায়। অন্যদিকে, ডকুমেন্টের ক্ষেত্রে হোয়াটসঅ্যাপ তার ইউজারদের ১০০ এমবি পর্যন্ত সাইজের ফাইল শেয়ার করার সুযোগ দেয়। ফলে খুব স্বাভাবিকভাবে এই ফিচারটি রোলআউট হলে অ্যাপটির ইউজারবেস যে আরও অধিক পরিমাণে বাড়বে, সেকথা আর আলাদা করে বলার অপেক্ষা রাখে না।

এছাড়া, সুদীর্ঘ জল্পনা-কল্পনার পর সম্প্রতি মেসেজ রিঅ্যাকশন ফিচারের ওপর থেকে পর্দা সরিয়েছে WhatsApp। এই মুহূর্তে যাদের অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনে WhatsApp-এর ২.২২.১১.৯ বিটা ভার্সনটি রয়েছে, কেবল তারাই এই ফিচারটি উপভোগ করতে পারবেন বলে জানা গিয়েছে। তবে খুব শীঘ্রই এই ফিচারটির স্টেবল রোলআউট হবে বলে ধরে নেওয়া যেতে পারে। এই ফিচারের দৌলতে চ্যাটিংয়ের সময় WhatsApp ব্যবহারকারীরা অপরের পাঠানো মেসেজে রিঅ্যাক্ট করতে পারবেন। আপাতত ইউজারদের কাছে যে-কোনো মেসেজের ক্ষেত্রে লাইক (Like), লাভ (Love), হাসি (Laugh), বিস্ময় (Surprised), দুঃখ (Sad) এবং থ্যাঙ্কস (Thanks) – এই ৬টি রিঅ্যাকশন ব্যবহার করার সুযোগ থাকলেও আগামী দিনে সংস্থাটি তাদের আরও ইমোজি ব্যবহার করতে দেবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

স্মার্টফোন, গাড়ি-বাইক সহ প্রযুক্তি দুনিয়ার সব গুরুত্বপূর্ণ খবর সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Google News ও Twitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।