QR কোড স্ক্যান করা মাত্রই আপনার নামে চারাগাছ বসবে, সবুজায়নের সঙ্গে পরিবেশ বাঁচাতে অভিনব উদ্যোগ এই সংস্থার

telioev-launches-campaign-to-plant-50-000-trees-this-year

বর্তমানে সমগ্র বিশ্বে জলবায়ুর পরিবর্তন ও বিশ্ব উষ্ণায়ন বিশেষ মাথা যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যা মোকাবিলা করতে প্রায় সকল দেশের সরকার থেকে অসংখ্য পরিবেশবিদ উঠে পড়ে লেগেছেন। যা থেকে নিস্তার পাওয়ার সর্বশ্রেষ্ঠ পন্থাগুলির মধ্যে একটি হল জীবাশ্ম জ্বালানি চালিত যানবাহন কমিয়ে বৈদ্যুতিক গাড়ির ব্যবহার বাড়ানো এবং অপরটি আরও বেশি পরিমাণে গাছগাছালি রোপণ করা। এবার দিল্লির ইলেকট্রিক ভেহিকেল চার্জিং স্টেশন লোকেটর টেলিওইভি (TelioEV) দ্বিতীয় পদ্ধতিটি বেছে নেওয়ার এক অনন্য পদক্ষেপের ঘোষণা করল।

টেলিওইভি টুইটারে জানিয়েছে, তারা ‘গ্রিন ওয়ারিয়ার্স ক্যাম্পেইন’ বা ‘পরিবেশবান্ধব যোদ্ধাদের অভিযান’ নামক একটি কার্যাবলীর আয়োজন করেছে। যার লক্ষ্য ভারতে এক বছরের মধ্যে ৫০,০০০ গাছ লাগানো। যার মধ্য দিয়ে দেশে কার্বন নির্গমনের পরিমাণ এবং তাপমাত্রা কমিয়ে একটি সবুজ বিশ্ব তৈরি করা। তবে এই বৃহৎ সংখ্যক গাছ কিভাবে লাগানো হবে তার একটি চমৎকার পদ্ধতির কথা জানিয়েছে সংস্থাটি। কী সেই পদ্ধতি?

টেলিওইভি একটি কিউআর (QR) কোড চালু করেছে। যেটি স্মার্টফোনের মাধ্যমে স্ক্যান করে যে কেউ নিজের নামে একটি গাছ লাগাতে পারবেন। প্রথমে TelioEV-র কিউআর কোডটি স্ক্যান করে তাদের মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। তাতে সাইন আপ করলেই আপনার দায়িত্ব শেষ। সংস্থাটি আপনার নামে লাগিয়ে দেবে একটি সুন্দর তরতাজা গাছের চারা। অর্থাৎ তিনটি ধাপে একটি গাছ বাড়ি বসেই আপনার নামে লাগিয়ে ফেলতে পারবেন।

গাছ লাগানোর পর সংস্থার তরফে একটি শংসাপত্র দেওয়া হবে। যেখানে গাছের ছবি সহ একটি ইউনিক কোড থাকবে। এই প্রসঙ্গে সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও অমিত সিং বলেন, “জলবায়ুর পরিবর্তন সমগ্র বিশ্বে বর্তমানে একটি গুরুতর সমস্যা। ভারতে এই প্রথম ‘হিউম্যান কিউআর কোড স্ক্যান’ এবং ‘গ্রিন ওয়ারিয়ার্স ক্যাম্পেইন’ এর প্রচলন করা হল, যা বিশেষত তরুণ প্রজন্মের মধ্যে উন্নততর ও দীর্ঘস্থায়ী পরিবেশের সম্পর্কে সচেতনতা জাগাবে। আমরা আমাদের TelioEV মোবাইল অ্যাপের ডাউনলোড এর সংখ্যা যত বাড়বে তত বেশি সংখ্যক গাছ লাগানোর লক্ষ্য স্থির করেছি।”

গেম খেলতে এখানে ক্লিক করুন

শুভদীপ টেকগাপে অটোকার বিষয়ক লেখালিখি করে। এর আগে বিভিন্ন পোর্টালের সাথে যুক্ত থাকলেও, অটোকার নিয়ে টেকগাপে তার হাতেখড়ি। দিনকে দিন সে টেকগাপের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে উঠেছে।