Viral: ভুয়ো কোভিড পজিটিভ রেজাল্ট দেখিয়ে স্কুল ফাঁকি দিচ্ছে যুক্তরাজ্যের ছাত্রছাত্রীরা

পৃথিবী ব্যাপী সর্বত্র কিছু কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে স্কুল থেকে পালানোর বরাবরই একটা প্রবণতা থাকে, এবং এর জন্য নিত্যনতুন উদ্ভাবনী ফন্দিফিকির তাদের মাথায় আসতে থাকে। কখনো কখনো এই ফন্দিফিকিরের খবর হয়ে থাকে মজাদার, আবার কখনো শিক্ষাব্যবস্থার হর্তাকর্তাদের চরম দুশ্চিন্তার মুখে ফেলে দেয়। যেমন সাম্প্রতিক কোভিড পরিস্থিতিতে যুক্তরাজ্যের কিশোর-কিশোরীরা স্কুল বাঙ্ক করার জন্য একটি নতুন উপায় খুঁজে বের করেছে। সম্প্রতি ল্যাটেরাল ফ্লো টেস্টে কোভিড পজিটিভ রেজাল্ট পেতে ইউজারদের জুস, ভিনিগার ব্যবহার করার ভিডিওগুলি ব্যাপকভাবে শেয়ার করা হচ্ছে এবং TikTok-এ পোস্ট করা হচ্ছে। এর ফলে শিক্ষার্থীরা কীভাবে নকল কোভিড পজিটিভ টেস্ট রিপোর্ট পাওয়া যায়, সে সম্পর্কে ধারণা পেয়ে যাচ্ছে এবং সেই পদ্ধতি অবলম্বন করে স্কুল ফাঁকি দিচ্ছে!

iNews UK দ্বারা প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুসারে, কিশোর-কিশোরীরা TikTok থেকে কিছু সম্পূর্ণ বিচিত্র টিপস সংগ্রহ করেছে, যার মধ্যে অন্যতম হল কোভিড-১৯ পজিটিভ টেস্ট জাল করা। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, শিক্ষার্থীদের কোভিড- ১৯ পজিটিভ রেজাল্ট পেতে ল্যাটেরাল ফ্লো টেস্টে লেবুর রস এবং অন্যান্য বিভিন্ন তরল প্রয়োগ করতে দেখা গেছে। TikTok-এ এই ধরনের একাধিক ভিডিও শেয়ার করা হয়েছে, এবং ভিডিওগুলি প্ল্যাটফর্মে এক মিলিয়ন ভিউ পেয়েছে। ভিডিওগুলি #fakecovidtest হ্যাশট্যাগের অধীনে আপলোড করা হচ্ছে। একই নামে একটি ডেডিকেটেড টিকটক অ্যাকাউন্টও রয়েছে, যার এখন ফলোয়ার সংখ্যা ২০,০০০-এরও বেশি ছাড়িয়েছে।

ব্যবহারকারীরা বেশিরভাগই র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টে লেবুর রস, অ্যাপল সস, কোকা কোলা, ভিনিগার, হ্যান্ড স্যানিটাইজারের কম্বিনেশন টেস্ট করার ভিডিও আপলোড করছেন। এই ধরনের টেস্ট করার মুখ্য উদ্দেশ্যটি হল কোভিড পজিটিভ রেজাল্ট পাওয়া, যাতে শিক্ষার্থীরা স্কুল বাঙ্ক করতে পারে। যুক্তরাজ্যে অবস্থিত Full Fact নামক একটি ফ্যাক্ট-চেকিং সংস্থা জানিয়েছে যে, ফিজি ড্রিংকস (fizzy drinks) এবং সাইট্রাস ফ্রুটস (citrus fruits) র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের পজিটিভ রেজাল্ট প্রদর্শন করতে পারে, কিন্তু যখন মানুষের উপর ব্যবহার করা হয়, তখন এটি খুব কমই ভুল পজিটিভ রেজাল্ট শো করে।

খুব স্বাভাবিকভাবেই যুক্তরাজ্যের শিক্ষাব্যবস্থার মাথারা এই বিষয়টিকে নিয়ে অত্যন্ত চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। স্কুল ও কলেজ লিডার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক, জিওফ বার্টন iNews-কে জানিয়েছেন, ” আমাদের ধারণা, খুব কম সংখ্যক শিক্ষার্থীই এই পন্থা অবলম্বন করছে। আমরা অভিভাবকদের অনুরোধ করছি যে, এই টেস্টগুলির যাতে অপব্যবহার না করা হয় তাঁরা যেন সেদিকে খেয়াল রাখেন। রাসায়নিক বিক্রিয়া সম্পর্কে জানতে যে সকল শিক্ষার্থীরা চরম উৎসাহী, তারা এই ধরনের টেস্ট না করে স্কুল বা কলেজের রসায়নাগারে যেন তাদের উদ্ভাবনী শক্তিকে সৎ উপায়ে বিকশিত করে। “

এই প্রসঙ্গে TikTok-এর একজন মুখপাত্র বলেছেন যে, প্ল্যাটফর্মটি কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সকল ভুল তথ্য রিমুভ করেছে। কোনোভাবেই যাতে এই প্ল্যাটফর্মটির মাধ্যমে Covid-19 চিকিৎসা সংক্রান্ত ভুল ও বিভ্রান্তিকর তথ্য এবং ভ্যাকসিন বিরোধী অপপ্রচার ছড়িয়ে না পড়ে, সে বিষয়ে সংস্থাটি সর্বদা কড়া নজর রেখেছে। এর পাশাপাশি যাতে এই প্ল্যাটফর্মটির মাধ্যমে সাধারণ মানুষ কোভিড-১৯ সম্পর্কিত নির্ভুল তথ্য পান, সেজন্য সংস্থাটি সারা বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানীদের সাথে পরামর্শ করার পাশাপাশি Team Halo-র সাথে অংশীদারিত্ব করেছে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

সবার আগে স্মার্টফোন ও প্রযুক্তি দুনিয়ার যাবতীয় খবর এবং গাড়ি-বাইকের সমস্ত আপডেট পেতে ফলো করুন আমাদের Google NewsTwitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।