Indigo: মাঝ-আকাশে প্লেনের মধ্যে স্মার্টফোনে আগুন, বরাতজোরে রক্ষা

এয়ারপ্লেন সওয়ারির স্মার্টফোনে লাগলো আগুন, ক্রু সদস্যদের পারদর্শীতায় এড়ানো গেলো দুর্ঘটনা

smartphone-catches-fire-mid-air-indigo-flight-no-injuries-report

বিগত দু-তিন বছরের মধ্যে বিশ্বজুড়ে একাধিক স্মার্টফোন ব্লাস্টের খবর আমাদের কানে এসেছে। আর, বহু ক্ষেত্রেই ইউজারদের গুরুতরভাবে জখম হওয়ার রিপোর্ট সামনে এসেছে। আজ ফের একটি স্মার্টফোন বিস্ফোরণের ঘটনা সামনে এল। বিমান চলাচল নিয়ন্ত্রক ‘ডিরেক্টরেট জেনারেল অফ সিভিল এভিয়েশন’ ওরফে DGCA এর কর্মকর্তাদের বিবৃতি অনুসারে, গতকাল দেশীয় এয়ারলাইন সংস্থা ইন্ডিগো (IndiGo)-র ডিব্রুগড়-দিল্লি ফ্লাইটে একজন যাত্রীর মোবাইলে আকস্মিক আগুন ধরে যায় বলে খবর। তবে, কেবিন ক্রু মেম্বারদের তাৎক্ষণিক বোধবুদ্ধি ও প্রশিক্ষণের কারণে এই ঘটনাটি মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারেনি। জানা গেছে, ধোঁয়া এবং আগুনের ফুলকি দেখা মাত্রই অগ্নি নির্বাপক যন্ত্রের সাহায্যে আগুন নিভিয়ে ফেলা হয়েছিল। DGCA কর্মকর্তারা আরো জানিয়েছেন যে, এই ঘটনার কারণে কোনও যাত্রী বা কেবিন ক্রু সদস্যের কোনও ক্ষতি হয়নি।

এয়ারপ্লেন সওয়ারির স্মার্টফোনে লাগলো আগুন, ক্রু সদস্যদের পারদর্শীতায় এড়ানো গেলো দুর্ঘটনা

DGCA কর্মকর্তাদের বিবৃতি অনুসারে, ইন্ডিগো এয়ারলাইনের ডিব্রুগড় থেকে দিল্লি মুখী ৬ই ২০৩৭ (6E 2037) নম্বর ফ্লাইটের কেবিন ক্রু মেম্বার, টেক অফের পর একজন যাত্রীর ফোন থেকে আগুনির ফুলকি ও ধোঁয়া নির্গত হতে দেখতে পান। এরপর, কেবিন ক্রু সদস্যরা অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র ব্যবহার করে এই আগুন নিভিয়ে ফেলেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২.৪৫টা নাগাদ বিমানটি দিল্লি বিমানবন্দরে নিরাপদে অবতরণ করেছে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে রিপোর্টে।

এই বিষয়ে ইন্ডিগো এয়ারলাইনের মন্তব্য, “ডিব্রুগড় থেকে দিল্লি যাওয়ার ফ্লাইট ৬ই ২০৩৭ (6E 2037) -এ এক যাত্রীর মোবাইল ডিভাইসের ব্যাটারি অস্বাভাবিকভাবে গরম হয়ে ব্লাস্ট হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। আমাদের ক্রু মেম্বারদের সমস্ত বিপজ্জনক ঘটনা পরিচালনা করার জন্য যথাযথ ভাবে প্রশিক্ষিত করা হয়। যার দরুন, তারা দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছিল। এই ঘটনার ফলে ফ্লাইটে থাকা কোনো যাত্রী বা অনবোর্ড প্রপার্টি ক্ষতিগ্রস্থ হয়নি।”

প্রসঙ্গত, একই রকম আরেকটি ঘটনা ঘটেছিল সম্প্রতি। যেখানে, OnePlus Nord 2 স্মার্টফোনটি ব্যবহার করা কালীন একজন ব্যবহারকারীর হাতে বিস্ফোরিত হয়। ভাগ্যক্রমে, ব্যবহারকারীর কোন ক্ষতি হয়নি। তবে, এরূপ স্মার্টফোন বিস্ফোরণ বা আগুন ধরার ঘটনায় প্রত্যেকবার ব্যবহারকারীরা অক্ষত থাকেন না। অনেক ক্ষেত্রেই, ব্যবহারকারীদের শরীরের অংশ আগুন বা বিস্ফোরণের কারণে মারাত্মকভাবে পুড়ে যাওয়ার কথা শোনা গেছে। যেমন, গত বছর নভেম্বরে, আরেকটি OnePlus ডিভাইস আকস্মিক ফেটে যাওয়ার দরুন ব্যবহারকারী আহত হয়েছিলেন। তবে, ক্ষতিপূরণ হিসাবে সংস্থাটি গ্রাহককে স্মার্টফোনের সম্পূর্ণ টাকা ফেরত দিয়েছিল এবং একই সাথে তার চিকিৎসার খরচও বহন করেছিল।

গেম খেলতে এখানে ক্লিক করুন

শুভেচ্ছা বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। তিনি একদিকে যেমন ফটোগ্রাফার, তেমনি পাশাপাশি লেখিকাও। এছাড়াও তার শখের মধ্যে আছে বই পড়া, গান গাওয়া, ছবি আঁকা এবং ওয়েব ডিজাইন। শুভেচ্ছা আমাদের টেকগাপ পরিবারের একজন নতুন সদস্য।