লঞ্চের আগেই সমস্ত তথ্য প্রকাশ, টপ স্পিড থেকে মাইলেজ, পাওয়ার থেকে ফিচার্স, Royal Enfield Hunter 350 এর খুঁটিনাটি রইল

royal-enfield-hunter-350-specifications-features-expected-price

রেট্রো মোটরসাইকেলের বাজারে নতুনভাবে ঝড় তুলতে আসছে Royal Enfield Hunter 350। আগামীকাল লঞ্চ হচ্ছে রোডস্টার বাইকটি। এদিকে গ্রাহকদের উত্তেজনা প্রশমিত করতে লঞ্চের আগেই এটিকে পর্দার আড়াল থেকে সর্বসমক্ষে এনেছে রয়্যাল এনফিল্ড। Hunter 350-র ছবি থেকে সম্পূর্ণ স্পেসিফিকেশন, কোনকিছুই আর লোকচক্ষুর আড়ালে নেই। তাই হিসেব মতো আগামীকাল শুধু এর দাম ঘোষণার পালা। গতকাল চেন্নাইয়ের সংস্থাটির সিইও সিদ্ধার্থ লাল জানান, ২০১৬ সাল থেকেই নাকি Royal Enfield Hunter 350-এর উপর কাজ শুরু হয়েছিল। একটি ভিডিয়ো শেয়ার করে বাইকটির সাথে সমগ্র বিশ্বের পরিচয় করান। এটি রয়্যাল এনফিল্ডের J-সিরিজ প্ল্যাটফর্মের উপর ভিত্তি করে আসছে। এই একই প্ল্যাটফর্মে Classic 350 ও Meteor 350 বাইক দুটিও তৈরি হয়েছে।

রয়্যাল এনফিল্ডের দাবি Hunter 350-র চ্যাসিসটি সম্পূর্ণভাবে পরিবর্তিত করা হয়েছে, যাতে একটি অনন্য মোটরসাইকেল হিসেবে রূপ দেওয়া যায়। এতে Continental GT 650 এবং Scram 411-এর মতো ডুয়াল টোন ম্যাট ফিনিশ বর্তমান। দেখতেও বেশ সুন্দর লাগছে। ফুয়েল ট্যাঙ্কের উপর ডুয়াল টোন ফিনিশিং থাকলেও দেহের বাকি অংশে কালো রঙের আধিক্য। তবে ক্রোম ট্রিটমেন্টের অনুপস্থিতি অবাক করেছে। রয়্যাল এনফিল্ডের অন্যান্য মডেলের মতো হান্টারেও হ্যালোজেন বাল্ব যুক্ত গোল হেডল্যাম্প, টেল ল্যাম্প ও টার্ন ইন্ডিকেটর দেওয়া হয়েছে। আবার পিছনে স্প্লিট রিয়ার গ্রাব রেল থাকার কারণে ইউনিক স্টাইলিং এসেছে। ফুয়েল ট্যাঙ্কের উপরে রয়্যাল এনফিল্ড বড় বড় করে লেখা।

নতুন প্রজন্মের Classic 350 ও Meteor 350 ক্রুজারের অনুরূপে Hunter 350 আসবে ৩৫০ সিসি ইঞ্জিনের সঙ্গে। যা ৬,১০০ আরপিএম গতিতে ২০.২ বিএইচপি ক্ষমতা ও ৪,০০০ আরপিএমে ২৭ এনএম টর্ক উৎপন্ন করবে। সাথে থাকবে ফাইভ স্পিড গিয়ারবক্স। ঘন্টা প্রতি সর্বোচ্চ ১১৪ কিলোমিটার গতি উঠবে। মাইলেজ ৩৫.২ কিমি হবে বলে দাবি করা হয়েছে।  বাইকটিতে গোল অফসেট ইনস্ট্রুমেন্ট ক্লাস্টার দেখা যাবে। ট্রিপার নেভিগেশনের জন্য আলাদা পড থাকতে দেখা গিয়েছে। তবে এটি টপ-এন্ড ভ্যারিয়েন্টের জন্য৷ Royal Enfield Hunter 350 আকার আয়তনে সংস্থার সবচেয়ে ছোট মডেল হবে।

Hunter 350-এর ওজন ১৮১ কেজি, যা Classic 350-র চাইতে ১০ কেজি কম। থাকবে ১৩ লিটারের ফুয়েল ট্যাঙ্ক। এর মাটি থেকে সিটের উচ্চতা এবং হুইলবেস যথাক্রমে ৮০০ মিমি ও ১,৩৭০ মিমি। এতে ১৭ ইঞ্চি অ্যালয় হইলের সামনে ও পেছনে যথাক্রমে ১১০/৭০ ও ১৫০/৭০ সেকশন টায়ার থাকবে। সামনে ৪১ মিমি টেলিস্কোপিক ফর্ক এবং পেছনে ৬-স্টেপ প্রিলোড অ্যাডজাস্টেবল শক অ্যাবজর্ভার সহ আসবে বাইকটি। ব্রেকিংয়ের জন্য এতে ডুয়েল চ্যানেল এবিএস সহ সামনে ৩০০ মিমি ও পেছনে ২৭০ মিমি ডিস্ক ব্রেক থাকছে।

৩৫০ সিসির এই মোটরসাইকেল তিনটি ভ্যারিয়েন্টে বেছে নেওয়া যাবে – Retro, Metro ও Metro Rebel। রেট্রো ভ্যারিয়েন্ট ফ্যাক্টরি ব্ল্যাক এবং ফ্যাক্টরি সিলভার কালার অপশনে আসবে। মেট্রো ভার্সন হোয়াইট, অ্যাশ এবং গ্রে পেইন্ট স্কিমে উপলব্ধ হবে। আর টপ-স্পেক হান্টার মেট্রো রেবেল তিনটি রঙে বেছে নেওয়া যাবে – ব্ল্যাক, ব্লু এবং রেড। রয়্যাল এনফিল্ড হান্টার ৩৫০ এর দাম ১.৫ লাখ থাকা থেকে শুরু হবে বলে অনুমান৷ Honda CB 350, TVS Ronin, এবং Jawa 42-এর সঙ্গে Royal Enfield Hunter 350-এর প্রতিযোগিতা চলবে।

স্মার্টফোন, গাড়ি-বাইক সহ প্রযুক্তি দুনিয়ার সব গুরুত্বপূর্ণ খবর সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Google News ও Twitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।