Realme C30 vs Redmi 10A: রিয়েলমি নাকি রেডমি, সস্তায় কে দিচ্ছে সেরা ফিচার

Realme C30 নাকি Xiaomi Redmi 10A, কোন ফোনটি কিনবেন জেনে নিন

গত ২০ই জুন ভারতে আত্মপ্রকাশ করেছিল Realme C30। এটি বিদ্যমান Realme C31 স্মার্টফোনের ডাউন-টোন মডেল হিসাবে ভারতে পা রেখেছে। ফিচার হিসাবে Realme আনীত এই লেটেস্ট এন্ট্রি-লেভেল স্মার্টফোনে – HD+ IPS LCD ডিসপ্লে প্যানেল, অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড কাস্টম স্কিন, ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা এবং ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি উপস্থিত। সর্বোপরি এর দাম শুরু হচ্ছে মাত্র ৭,৪৯৯ টাকা থেকে। দেখতে গেলে প্রায় একই ফিচার এবং প্রাইজ ট্যাগের সাথে ভারতের বাজারে আরেকটি বাজেট রেঞ্জের ফোন বিদ্যমান আছে। আজ্ঞে হ্যাঁ! আমরা কথা বলছি গত এপ্রিলে লঞ্চ হওয়া Xiaomi Redmi 10A স্মার্টফোনের প্রসঙ্গে। এদিকে যেহেতু উল্লেখিত 4G হ্যান্ডসেট দ্বয়ের ফিচারের মধ্যে পার্থক্যের রেখা খুবই সুক্ষ্ম, সেহেতু এগুলির মধ্যে যেকোনো একটিকে বেছে নেওয়া যথেষ্ট বিভ্রান্তির বিষয় হতে পারে আপনাদের জন্য। তাই আজ আমরা আপনাদের সুবিধার্থে Realme এবং Redmi-রৈ সাশ্রয়ী মূল্যের স্মার্টফোন দুটির মধ্যে দাম ও ফিচারগত তুলনামূলক আলোচনা করবো।

Realme C30 vs Xiaomi Redmi 10A : ডিসপ্লে, সেন্সর

অন্যন্য ভার্টিক্যাল স্ট্রাইপ ডিজাইনের সাথে আসা রিয়েলমি সি৩০ স্মার্টফোনে, একটি ৬.৫ ইঞ্চির এইচডি প্লাস (১,৬০০x৭২০ পিক্সেল) IPS LCD ডিসপ্লে আছে, যা ৬০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট, ২০:৯ এসপেক্ট রেশিও এবং ৮৮.৭% স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও সাপোর্ট করে। এতে অ্যাক্সেলেরোমিটার এবং প্রক্সিমিটি সেন্সর বর্তমান।

শাওমি রেডমি ১০এ ফোনে আছে ৬.৫৩ ইঞ্চি এইচডি প্লাস (১,৬০০x ৭২০ পিক্সেল) ওয়াটার-ড্রপ নচ IPS LCD ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লে ৪০০ নিট পিক ব্রাইটনেস এবং ২০:৯ এসপেক্ট রেশিও অফার করবে। ডিভাইসটির সেন্সর তালিকায় অ্যাক্সেলেরোমিটার এবং প্রক্সিমিটি সেন্সর সামিল আছে। এছাড়া, নিরাপত্তার জন্য ডুয়েল-সিমের এই ফোনে রিয়ার-মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরও দেওয়া হয়েছে।

Realme C30 vs Xiaomi Redmi 10A : প্রসেসর, অপারেটিং সিস্টেম, র‍্যাম, স্টোরেজ

অভ্যন্তরীণ স্পেসিফিকেশনের কথা বললে, রিয়েলমি সি৩০ স্মার্টফোনে ১২এনএম প্রসেসিং নোড ভিত্তিক অক্টা-কোর ইউনিসক টি৬১২ (Unisoc T612) প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক রিয়েলমি ইউআই গো কাস্টম ইউজার ইন্টারফেস দ্বারা চালিত। সংস্থার সি-লাইনআপের এই লেটেস্ট মডেলে ৩ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম ও ৩২ জিবি অনবোর্ড স্টোরেজ রয়েছে।

পারফরম্যান্সের জন্য, শাওমি রেডমি ১০এ ফোনটি ১২এনএম প্রসেসিং নোড ভিত্তিক মিডিয়াটেক হেলিও জি ২৫ প্রসেসর সহ এসেছে। এটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক এআইইউআই ১২.৫ কাস্টম স্কিনে রান করবে। আর স্টোরেজ হিসাবে, এই ফোনে ৪ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি পর্যন্ত মেমরি উপলব্ধ। যদিও মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে ফোনের স্টোরেজ ক্যাপাসিটির ৫১২ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

Realme C30 vs Xiaomi Redmi 10A : ক্যামেরা সেটআপ

নবাগত রিয়েলমি সি৩০ স্মার্টফোনে এফ/২.০ অ্যাপারচার সহ ৮ মেগাপিক্সেলের একক রিয়ার ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। একই সাথে সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য উক্ত ডিভাইসে থাকছে এফ/২.২ অ্যাপারচার সহ একটি ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা।

ফটোগ্রাফির জন্য, শাওমি রেডমি ১০এ ফোনের রিয়ার প্যানেলে এফ/২.০ অ্যাপারচার সহ ১৩ মেগাপিক্সেলের একক ক্যামেরা উপস্থিত। এই রিয়ার ক্যামেরায় পোট্রেট মোড সাপোর্ট করে। এই ফোনের সামনে একটি ৫ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা রয়েছে।

Realme C30 vs Xiaomi Redmi 10A : ব্যাটারি, কানেক্টিভিটি অপশন

রিয়েলমি সি৩০ স্মার্টফোনে পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য ৫,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে, যা মাইক্রো ইউএসবি পোর্টের মাধ্যমে ১০ওয়াট চার্জিং স্পিড সমর্থন করে। আর সংস্থার দাবি অনুসারে, এই ব্যাটারি একবার চার্জে ২৪ ঘন্টা পর্যন্ত ডিভাইসকে সক্রিয় রাখবে। আর এর কানেক্টিভিটি অপশনের মধ্যে, ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ৫.০, জিপিএস, এফএম রেডিও, ইউএসবি টাইপ-সি ২.০ পোর্ট এবং ৩.৫মিমি হেডফোন জ্যাক সামিল রয়েছে।

পাওয়ায় ব্যাকআপের জন্য শাওমি রেডমি ১০এ ফোনে ৫,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে, যা ১০ ওয়াট চার্জিং সাপোর্ট করে। কানেক্টিভিটির কথা বললে, এতে চার্জিং তথা ডেটা স্থানান্তরের জন্য মাইক্রো-ইউএসবি পোর্ট সহ ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ৫.০, জিপিএস, এনএফসি এবং ৩.৫ মিমি হেডফোন জ্যাক মিলবে।

Realme C30 vs Xiaomi Redmi 10A : দাম

সদ্য লঞ্চ হওয়া রিয়েলমি সি৩০ স্মার্টফোনকে ভারতে দুটি স্টোরেজ কনফিগারেশনের সাথে নিয়ে আসা হয়েছে। যার মধ্যে, ২ জিবি র‌্যাম ও ৩২ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম ৭,৪৯৯ টাকা রাখা হয়েছে। আর, ৩ জিবি র‌্যাম ও ৩২ জিবি স্টোরেজ অপশনের দাম ৮,২৯৯ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এটিকে লেক ব্লু এবং ব্যাম্বু গ্রিন কালারে পাওয়া যাবে।

রেডমি ১০এ স্মার্টফোনটিও দুটি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে ভারতে এসেছে। ডিভাইসটির ৩ জিবি র‌্যাম + ৩২ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম ৮,৪৯৯ টাকা ধার্য করা হয়েছে। আর ৪ জিবি র‌্যাম + ৬৪ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম থাকছে ৯,৪৯৯ টাকা। ফোনটি সী ব্লু, স্লেট গ্রে ও চারকোল ব্ল্যাক কালারে বেছে নেওয়া যাবে।

সবার আগে খবর পেতে Google News-এ ফলো করুন