Smartphones: বাজার কাঁপাচ্ছে এই পাঁচটি ফোন, শক্তিশালী ব্যাটারি সহ পাবেন ফাস্ট প্রসেসর

৪০,০০০ টাকার নিচে উপলব্ধ ৫টি সেরা স্মার্টফোনের বিষয়ে জেনে নিন

premium-smartphones-under-40000-rupees-budget-check-oppo-vivo-samsung-realme-xiaomi

আপনি যদি মর্ডার্ন লুকের সাথে একটি ‘অলরাউন্ডার’ স্মার্টফোন কিনতে ইচ্ছুক থাকেন, তবে ভারতীয় বাজারে প্রিমিয়াম সেগমেন্টের অধীনে উপলব্ধ হ্যান্ডসেটগুলি একবার দেখতে পারেন। কেননা, ৪০,০০০ টাকা বাজেটের সাথে আসা স্মার্টফোনগুলিতে আপনারা একত্রে – আকর্ষণীয় ডিজাইন, উৎকর্ষমানের ডিসপ্লে ফিচার, অ্যাডভান্স প্রসেসর, অধিক স্টোরিজ, উন্নত ক্যামেরা সেটআপ এবং শক্তিশালী ব্যাটারি পেয়ে যাবেন। তবে এই সেগমেন্টের অধীনে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ফোন বিদ্যমান থাকায়, কোনটা ছেড়ে কোনটা কেনা সঠিক হবে এই বিভ্রান্তি দেখা দেওয়াই স্বাভাবিক। তাই আপনাদের সুবিধার্থে আজ আমরা এমন ৫টি সেরা প্রিমিয়াম হ্যান্ডসেটের খোঁজ দেব যেগুলি আপনার প্রতিটি চাহিদা পূরণে সক্ষম হবে। এই তালিকায় – Oppo Reno7 Pro 5G, Vivo V23 Pro 5G, Samsung Galaxy A53, Realme GT Neo 3 এবং Xiaomi 11T Pro 5G Hyperphone অন্তর্ভুক্ত। উল্লেখিত প্রত্যেকটি মডেলে ১২ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম ও সর্বোচ্চ ২৫৬ জিবি স্টোরেজ পাওয়া যাবে। আর দাম ৪০,০০০ টাকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে।

৪০,০০০ টাকার নিচে উপলব্ধ ৫টি সেরা স্মার্টফোনের তালিকা

Xiaomi 11T Pro 5G Hyperphone: শাওমি ১১টি প্রো ৫জি ফোনে গরিলা গ্লাস ভিক্টাস প্রটেকশন সহ একটি ৬.৬৭ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (১০৮০x২৪০০ পিক্সেল) ১০ বিট ট্রু কালার অ্যামোলেড ডিসপ্লে আছে। এই ডিসপ্লে, ১২০ হার্টজ ডায়নামিক রিফ্রেশ রেট, ৪৮০ হার্টজ টাচ স্যাম্পলিং রেট, ১,০০০ নিটস পিক ব্রাইটনেস ও ডলবি ভিশন সাপোর্ট করবে। পারফরম্যান্সের জন্য উক্ত ফোনে এড্রেনো ৬৬০ জিপিইউ ও কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এটি ৩ জিবি পর্যন্ত ভার্চুয়াল র‌্যাম সাপোর্ট করবে। ছবি তোলার জন্য এই ফোনে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ বর্তমান। এগুলি হল – ১০৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা সেন্সর, ১২০-ডিগ্রি ফিল্ড-অফ-ভিউ সহ ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড লেন্স এবং অটোফোকাস সহ ৫ মেগাপিক্সেল টেলিম্যাক্রো ক্যামেরা সেন্সর। আবার সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য ১৬ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা উপস্থিত থাকছে। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য ফোনটি ১২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট সহ ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি অফার করবে। কোম্পানির তরফে দাবি করা হয়েছে, ফোনটি ১৭ মিনিটে ফুল চার্জ হবে। নিরাপত্তার জন্য এই ফোনে সাইড-ফেসিং ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার উপলব্ধ।

দাম : শাওমির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে, Xiaomi 11T Pro 5G Hyperphone স্মার্টফোনের ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ অপশনের দাম ৩৮,৯৯৯ টাকা রাখা হয়েছে। এটি -মেটোরিট গ্রে, মুনলাইট হোয়াইট এবং সেলেস্টিয়াল ব্লু কালারে এসেছে।

Samsung Galaxy A53 5G: স্যামসাং গ্যালাক্সি এ৫৩ ৫জি ফোনে ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট সহ একটি ৬.৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি (১,০৮০x২,৪০০ পিক্সেল) সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে আছে। পারফরম্যান্সের জন্য, এই ফোনে সংস্থার নিজস্ব এক্সিনস ১২৮০ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১২ ভিত্তিক ওয়ান ইউআই ৪.১ কাস্টম স্কিনে রান করে। ক্যামেরা ফ্রন্টের কথা বললে, স্যামসাং গ্যালাক্সি এ৫৩ ৫জি ফোনের কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ বিদ্যমান। এগুলি হল – ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, ১২ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স, ৫ মেগাপিক্সেল ডেপ্থ সেন্সর এবং ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো শুটার। পাশাপাশি সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য, ফোনের সামনে ৩২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা থাকছে। সেন্সর হিসাবে ফোনে, অ্যাক্সেলেরোমিটার, অ্যাম্বিয়েন্ট লাইট, জাইরোস্কোপ, ম্যাগনেটোমিটার, প্রক্সিমিটি এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য, স্যামসাংয়ের এই হ্যান্ডসেটে ২৫ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট সহ ৫,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। উক্ত ফোনটি ধুলো ও জল প্রতিরোধের জন্য IP67 রেটিং সহ এসেছে।

দাম : স্যামসাংয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে, Samsung Galaxy A53 5G ফোনের ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টকে ৩২,৯৯৯ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। উক্ত মডেলটিকে – ব্ল্যাক, হোয়াইট, ব্লু এবং পীচ কালারে কেনা যাবে।

Vivo V23 Pro 5G: ডুয়েল সিমের (ন্যানো) ভিভো ভি২৩ প্রো স্মার্টফোনে রয়েছে একটি ৬.৫৬ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (২,৩৭৬x১,০৮০ পিক্সেল) কার্ভড AMOLED ডিসপ্লে। যার রিফ্রেশ রেট ৯০ হার্টজ ও পিক্সেল ডেনসিটি ৩৯৮ পিপিআই। এই ডিসপ্লে প্যানেলের মধ্যেই একটি অপটিক্যাল ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার এম্বেড করা আছে। আবার স্ক্রিনের উপরিভাগে থাকা নচ ডিজাইনের মধ্যে ডুয়েল-টোন ফ্ল্যাশ সহ ডুয়েল সেলফি ক্যামেরা ইউনিট দেওয়া হয়েছে। যার প্রাইমারি সেন্সর ৫০ মেগাপিক্সেলের। আর সেকেন্ডারি সেন্সর হিসাবে এতে, এফ/২.০ অ্যাপারচার এবং ১০৫° ফিল্ড-অফ-ভিউ সমেত ৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স থাকছে। রিয়ার ক্যামেরা সেটআপের কথা বললে, ভি২৩ সিরিজের এই প্রো ভ্যারিয়েন্টের পেছনে তিনটি সেন্সর বর্তমান। এগুলি হল, ১০৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, ১১৯° ফিল্ড-অফ-ভিউ সহ ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স এবং ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর। ফাস্ট পারফরম্যান্স ও মাল্টিটাস্কিংয়ের জন্য উক্ত ফোনে, ইন্টিগ্রেটেড মালি জি৭৭ জিপিইউ এবং ৬ এনএম প্রসেসিং নোড ভিত্তিক অক্টা-কোর মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ১২০০ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এটি অ্যান্ড্রয়েড ১২ ভিত্তিক ফানটাচ ওএস ১২ কাস্টম স্কিনে রান করবে। এতে ৪ জিবি ভার্চুয়াল র‍্যাম সাপোর্ট। পাওয়ার ব্যাকআপের কথা বললে, এই ৫জি স্মার্টফোনে ৪,৩০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে, যা ৪৪ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সমর্থন করে।

দাম : ভিভোর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট অনুসারে, Vivo V23 Pro 5G স্মার্টফোনের ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ অপশনের দাম ৩৮,৯৯০ টাকা। এটি – সানসাইন গোল্ড এবং স্টারডাস্ট ব্ল্যাক কালারে পাওয়া যাবে।

Oppo Reno 7 Pro 5G: ওপ্পো রেনো ৭ প্রো ৫জি ফোনে পাওয়া যাবে কর্নিং গরিলা গ্লাস প্রোটেকশন সহ একটি ৬.৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (১০৮০ x ২৪০০ পিক্সেল) অ্যামোলেড ডিসপ্লে, যার রিফ্রেশ রেট ৯০ হার্টজ ও টাচ স্যাম্পলিং রেট ১৮০ হার্টজ। সিকিউরিটির জন্য এতে ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর উপস্থিত৷ এই ফোনে মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ১২০০-ম্যাক্স চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে। আর অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে এতে অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক কালারওএস ১২ কাস্টম স্কিন পাওয়া যাবে। ফটোগ্রাফির জন্য উক্ত হ্যান্ডসেটে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ বর্তমান। এগুলি হল – ৫০ মেগাপিক্সেল Sony IMX766 প্রাইমারি সেন্সর, ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড শ্যুটার এবং ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো লেন্স। আবার ফোনের সামনে ৩২ মেগাপিক্সেলের Sony IMX709 সেলফি ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। ওপ্পো রেনো ৭ প্রো ৫জি স্মার্টফোনটি ৬৫ ওয়াট সুপারভোক (SuperVOOC) ফাস্ট চার্জিং টেকনোলজি ও ৪,৫০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি সহ এসেছে।

দাম : Oppo Reno 7 Pro 5G স্মার্টফোনের ১২ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম ৩৯,৯৯৯ টাকা রাখা হয়েছে। এটিকে – স্টারলাইট ব্ল্যাক, স্টারট্রেইলস ব্লু, গোল্ড এবং লীগ অফ লিজেন্ডস কালার অপশনে কেনা যাবে।

Realme GT Neo 3: রিয়েলমি জিটি নিও ৩ স্মার্টফোনে ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের একটি ৬.৭ ইঞ্চির ২কে (2K) ডিসপ্লে আছে, যা এইচডিআর১০+, ডিসি ডিমিং সাপোর্ট এবং ১,০০০ হার্টজ টাচ স্যাম্পলিং রেট অফার করে। এই ডিসপ্লের ডিজাইন পাঞ্চ হোল স্টাইল, যার কাট আউটের মধ্যে এফ/২.৪৫ অ্যাপারচার সহ ১৬ মেগাপিক্সেল Samsung S5K3P9 ফ্রন্ট সেন্সর উপস্থিত। আবার রিয়েলমি জিটি নিও ৩ ফোনের পিছনে LED ফ্ল্যাশ সহ ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ বর্তমান৷ এগুলি হল, OIS, EIS ও এফ/১.৮৮ অ্যাপারচার সাপোর্ট সহ ৫০ মেগাপিক্সেল Sony IMX766 প্রাইমারি সেন্সর, ১১৯-ডিগ্রি ফিল্ড-অফ-ভিউ সহ ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স এবং ২ ম্যাক্রো শুটার৷ ফাস্ট পারফরম্যান্সের জন্য উক্ত ফোনে মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৮১০০ ৫জি প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক রিয়েলমি ইউআই ৩.০ কাস্টম স্কিনে রান করে। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য জিটি নিও সিরিজের এই ফোনের একটি ভ্যারিয়েন্টে ১৫০ ওয়াট আল্ট্রাডার্ট চার্জিং সাপোর্ট সহ ৪,৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি পাওয়া যাবে। আবার ৮০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট যুক্ত ভ্যারিয়েন্টে ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তার জন্য ডিভাইসে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর দেওয়া হয়েছে।

দাম : রিয়েলমি সংস্থার অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে, Realme GT Neo 3 ফোনের ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ অপশনকে ৩৬,৯৯৯ টাকায় এনালিস্ট করা হয়েছে। এটি প্লেইন ব্ল্যাক (আস্ফাল্ট ব্ল্যাক), সিলভারস্টোন হোয়াইট (স্পিন্ট হোয়াইট) এবং লে ম্যান্স ব্লু (নিট্রো ব্লু) কালারে উপলব্ধ।

গেম খেলতে এখানে ক্লিক করুন

শুভেচ্ছা বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। তিনি একদিকে যেমন ফটোগ্রাফার, তেমনি পাশাপাশি লেখিকাও। এছাড়াও তার শখের মধ্যে আছে বই পড়া, গান গাওয়া, ছবি আঁকা এবং ওয়েব ডিজাইন। শুভেচ্ছা আমাদের টেকগাপ পরিবারের একজন নতুন সদস্য।