Oben Rorr: দু’ঘন্টার চার্জে 150 কিমি নিশ্চিত, দুর্গাপুজোর পর দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি এই ইলেকট্রিক বাইক কেনা যাবে

বেঙ্গালুরুর স্টার্টআপ সংস্থা Oben Electric গত মার্চ মাসে ভারতে তাদের প্রথম ব্যাটারি চালিত মোটরবাইক Rorr লঞ্চ করেছিল। সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি মোটরসাইকেলটি ডিজাইন এবং স্পেসিফিকেশনের দিক থেকে যথেষ্ট আকর্ষণ কেড়েছিল। বৈদ্যুতিক গাড়ি ইন্ডাস্ট্রির তাবড় তাবড় বিশেষজ্ঞরা দীর্ঘ ২৫ বছরের অভিজ্ঞতাকে সঞ্চয় করে তৈরি করেছেন এই অসাধারণ ই-বাইক। গত বৃহস্পতিবার সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে অক্টোবর মাসের শেষ দিক বা দিওয়ালি থেকে এই বাইকের ডেলিভারি শুরু হবে। ক্রয়ের জন্য উপলব্ধ হবে তখন থেকে।

সারা ভারত জুড়ে সম্প্রতি দু’চাকার বৈদ্যুতিক গাড়িতে আগুন লাগার ঘটনায় যথেষ্ট উদ্বিগ্ন ভারত সরকার সহ  প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলি। তাই সেই ঘটনাগুলি থেকে শিক্ষা নিয়ে ওবেন ইলেকট্রিক তাদের এই নতুন ই-বাইকে বেশ কিছু সুরক্ষাজনিত বৈশিষ্ট্য ফিচার যোগ করেছে।

সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ও সহ প্রতিষ্ঠাতা দীনকর আগরওয়াল ও মধুমিতা আগরওয়াল বলেছেন, এই বাইকে লিথিয়াম ফেরো ফসফেট (এলএফপি) ব্যাটারি প্রযুক্তি এবং একগুচ্ছ সেফটি ফিচার দিয়েছে। এই ধরনের ব্যাটারি বাজার চলতি সাধারণ মানের নিকেল, ম্যাঙ্গানিজ , কোবাল্ট যুক্ত লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারির থেকে ৩০% বেশি তাপ সহন ক্ষমতা রাখে বলে আগরওয়াল দাবি করেন। তিনি বলেন, “আমরাই ভারতের প্রথম এলএফপি ব্যাটারি ব্যবহারকারী টু হুইলার সংস্থা”।

এছাড়াও দীনকর দাবি করেন যে, তাদের এই বাইকে এমএএইচএক্স (MHX) নামক প্রোপাইটারি তাপ নির্গমন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে, যা প্রকৃতপক্ষে উৎপন্ন তাপকে বড় সমতলে পরিবাহিত করে খুব সহজেই বাইরের পরিবেশে বিলীন (হিট এক্সচেঞ্জ) হতে সাহায্য করে। তিনি বলেন, “আমরা ব্যাটারি প্যাকের মধ্যে প্রত্যেকটি ব্যাটারি সেলের সঙ্গে সলিড কুলান্ট যুক্ত করেছি যা তাড়াতাড়ি তাপকে টেনে নিতে সাহায্য করবে।”

উপরন্তু Rorr বাইকের ব্যাটারিকে অ্যালুমিনিয়ামের তৈরি প্রকোষ্ঠের মধ্যে রাখা হয়েছে। তাঁদের কথায়, “বর্তমানে প্রায় সমস্ত বৈদ্যুতিক গাড়িগুলিতে প্লাস্টিকের তৈরি ব্যাটারি বক্স থাকার কারণে ব্যাটারিতে আগুন লাগার ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে”। তবে Rorr-এর সাথে ইন্টারনেট সংযুক্ত সেন্সর লাগানো থাকছে যা দিয়ে সারাক্ষণ ব্যাটারি ও মোটরসাইকেলের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে এবং কোনরূপ সমস্যা শনাক্ত হলেই তৎক্ষণাৎ চালককে সেটি জানান দেয়।

Oben Rorr স্পেসিফিকেশন, ফিচার, ও দাম

ওবেন রোর এলইডি ডিআরএল সহ হেড ল্যাম্প,লম্বা হ্যান্ডেল বার, মাসকিউলার শার্প প্যানেল ও স্প্লিট সিট সহযোগে অবতীর্ণ হয়েছে। বাইকের সমস্ত রকম স্ট্যাটাস দেখার জন্য একটি বড় টাচ স্ক্রিন যুক্ত ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার দেওয়া আছে। এই বাইকে ৪.৪ কিলোওয়াট আওয়ার ক্ষমতাসম্পন্ন লিথিয়াম ব্যাটারি প্যাক দেওয়া হয়েছে। তার সঙ্গে থাকা মোটর সর্বোচ্চ ১৩.৪ বিএইচপি শক্তি এবং ৬২ এনএম টর্ক উৎপন্ন করে।

০-৪০ কিমি/ঘন্টা গতিবেগ তুলতে সময় লাগে মাত্র তিন সেকেন্ড। কোম্পানির দাবি অনুযায়ী সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ১০০ কিমি ও একবার পুরো চার্জ দিলে এটি ২০০ কিমি পর্যন্ত দূরত্ব অতিক্রম করতে সক্ষম। তবে বাস্তবে ১৫০ কিমির কাছাকাছি রেঞ্জ মিলতে পারে। ফাস্ট চার্জিং উপলব্ধ থাকায় সম্পূর্ণ ব্যাটারি চার্জ করতে সময় লাগবে মাত্র দুই ঘন্টা। বাইকের সামনে টেলিস্কোপিক ফর্ক ও পিছনে অ্যাডজাস্টেবল মনোশক সাসপেনশন দেওয়া হয়েছে। উভয় চাকায় কম্বাইন্ড ব্রেকিং সিস্টেম সহ ডিস্ক ব্রেক আছে।

মহারাষ্ট্রে কেন্দ্রীয় সরকারের ফেম-টু ভর্তুকি ধরে ওবেন রোর-এর দাম সবচেয়ে কম – ৯৯,৯৯৯ টাকা। তবে তেলেঙ্গানা,কর্ণাটক এবং তামিলনাড়ুতে মূল্য রাখা হয়েছে ১,২৪,৯৯৯ টাকা। বলাবাহুল্য, ওবেন সংস্থার উপরের লিখিত সমস্ত দাবি যদি বাস্তবায়িত হয় তবে অচিরেই Rorr মোটরসাইকেলটি ভারতের অন্যতম সেরা ই-বাইক হিসাবে পরিগণিত হবে।

স্মার্টফোন, গাড়ি-বাইক সহ প্রযুক্তি দুনিয়ার সব গুরুত্বপূর্ণ খবর সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Google News ও Twitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।