Motorola Edge 30 5G লঞ্চ হল 144Hz রিফ্রেশ রেটের ডিসপ্লে ও 32 মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরার সাথে

মোটোরোলা এজ ৩০-এর ৮ জিবি র‍্যাম + ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের প্রারম্ভিক মূল্য ৪৪৯.৯৯ ইউরো (প্রায় ৩৬,২৭০ টাকা)

জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড মোটোরোলা (Motorola) গতকাল (২৭ এপ্রিল) চুপিসারে বাজারে লঞ্চ করেছে আকর্ষণীয় ডিজাইন ও দুর্দান্ত ফিচার সহ Motorola Edge 30 মিড-রেঞ্জ স্মার্টফোনটি। এই ডিভাইসটি Qualcomm Snapdragon 778G+ চিপসেট, ১৪৪ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের ডিসপ্লে এবং ৪,০২০ এমএএইচ ব্যাটারি সহ এসেছে। আবার এতে ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা ও ৮ জিবি র‍্যাম পাওয়া যাবে। আসুন Motorola Edge 30-এর দাম, ডিজাইন ও স্পেসিফিকেশন সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জেনে নেওয়া যাক।

মোটোরোলা এজ ৩০-এর মূল্য এবং লভ্যতা (Motorola Edge 30 Price and Availability)

মোটোরোলা এজ ৩০-এর ৮ জিবি র‍্যাম + ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের প্রারম্ভিক মূল্য ৪৪৯.৯৯ ইউরো (প্রায় ৩৬,২৭০ টাকা)। এই মোটোরোলা হ্যান্ডসেটটি অরোরা গ্রিন, মিটিওর গ্রে এবং সুপারমুন সিলভার – এই তিনটি আকর্ষণীয় কালার অপশনে বেছে নেওয়া যাবে। ডিভাইসটি শীঘ্রই ইউরোপ, এশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, ল্যাটিন আমেরিকা এবং মধ্যপ্রাচ্য সহ কিছু নির্বাচিত বাজারে কেনার জন্য উপলব্ধ হবে।

মোটোরোলা এজ ৩০-এর ডিজাইন (Motorola Edge 30 Design)

মোটোরোলা এজ ৩০ একটি আকর্ষনীয় এবং ক্লিন লুকের সাথে এসেছে এবং ডিজাইনের দিক থেকে গত জানুয়ারিতে লঞ্চ হওয়া মোটোরোলা এজ ৩০ প্রো মডেলটির সাথে এই ফোনটির অনেক মিল রয়েছে। ডিভাইসটিতে একটি পিল-আকৃতির রিয়ার ক্যামেরা আইল্যান্ড রয়েছে, যা ব্যাক প্যানেল থেকে কিছুটা উঠে রয়েছে। এই হ্যান্ডসেটের প্রান্তগুলি সামান্য কার্ভড এবং ফোনের ডান ধারে পাওয়ার বাটন এবং ভলিউম রকারটি অবস্থান করছে৷ মোটোরোলা দাবি করেছে যে, মোটোরোলা এজ ৩০ এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে স্লিম ৫জি ফোন যার স্থুলতা মাত্র ৬.৭৯ মিলিমিটার (ক্যামেরা বাম্প বাদে)।

মোটোরোলা এজ ৩০-এর স্পেসিফিকেশন (Motorola Edge 30 Specifications)

মোটোরোলা এজ ৩০ ফোনে ৬.৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি ডিসপ্লে আছে, যা ১৪৪ হার্টজ উচ্চ স্ক্রিন রিফ্রেশ রেট এবং এইচডিআর১০+ সাপোর্ট অফার করে। ফ্রন্ট ক্যামেরার জন্য ডিসপ্লের উপরে মধ্যবর্তী স্থানে একটি পাঞ্চ-হোল কাটআউট দেখা যাবে এবং ফোনটির চারধারে পাতলা বেজেল রয়েছে। এই ডিভাইসটি কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৭৭৮জি+ চিপসেট দ্বারা চালিত, যা জনপ্রিয় স্ন্যাপড্রাগন ৭৭৮জি প্রসেসরের একটি ওভারক্লকড ভ্যারিয়েন্ট। এতে ৮ জিবি এলপিডিডিআর৪এক্স র‍্যাম এবং ১২৮ জিবি/২৫৬ জিবি স্টোরেজ পাওয়া যাবে। ডিভাইসটি অ্যান্ড্রয়েড ১২ ভিত্তিক মাই ইউএক্স (My UX) কাস্টম স্কিনে রান করে, যা একটি নিয়ার-স্টক অ্যান্ড্রয়েড অভিজ্ঞতা প্রদান করে।

ফটোগ্রাফির জন্য, Motorola Edge 30-এ একটি ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে। যার মধ্যে অপটিক্যাল ইমেজ স্টেবিলাইজেশন (OIS) এবং অল-পিক্সেল ফোকাস সহ ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। অল-পিক্সেল ফোকাস ফিচারটি সাধারণ ৩%- এর পরিবর্তে ১০০% পিক্সেল ব্যবহার করে একটি বিষয়ের ওপর ফোকাস করে। যার ফলে যেকোনো ধরনের আলোক পরিস্থিতিতে দ্রুত ফোকাস করা যায় এবং শার্প ছবি পাওয়া যায়। Edge 30-এর ক্যামেরা সেটআপে ১১৮ ডিগ্রি ফিল্ড-অফ-ভিউ সহ আরেকটি ৫০ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রা-ওয়াইড সেন্সর মিলবে, যা ম্যাক্রো ক্যামেরা হিসাবেও ব্যবহার করা যেতে পারে। প্রাথমিক এবং আল্ট্রাওয়াইড উভয় ক্যামেরাই ৩০ ফ্রেম প্রতি সেকেন্ড (fps)-এ ৪কে (4K) ভিডিও রেকর্ডিং এবং ৬০ ফ্রেম প্রতি সেকেন্ড (fps)-এ ১,০৮০ পিক্সেলের ভিডিও রেকর্ডিং করতে সক্ষম। ক্যামেরা আইল্যান্ডের তৃতীয় কাটআউটে একটি ২ মেগাপিক্সেল ডেপ্থ সেন্সর দেখা যাবে। ফোনের সামনে সেলফি এবং ভিডিও কলিংয়ের জন্য একটি ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা বর্তমান।

তবে Motorola Edge 30 মডেলটি অতি পাতলা হওয়ার কারণে, এতে পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য মাত্র ৪,০২০ এমএএইচ ক্ষমতার ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে, যা ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং (বাক্সের মধ্যে টার্বোপাওয়ার চার্জার) অফার করে। এছাড়াও এই ডিভাইসে রয়েছে ডুয়েল-সিম ৫জি (সাব-৬ গিগাহার্টজ), ওয়াই-ফাই ৬ই, ব্লুটুথ ৫.২, এনএফসি এবং একটি ইউএসবি-সি পোর্ট। নতুন হ্যান্ডসেটটিতে ৩.৫ মিলিমিটারের হেডফোন জ্যাক অনুপস্থিত রয়েছে এবং এটি আইপি ৫২ ডাস্ট এবং স্প্ল্যাশ রেজিস্ট্যান্স রেটিং সহ এসেছে। অডিওর জন্য, Motorola Edge 30-এ ডলবি অ্যাটমস সহ স্টেরিও স্পিকার আছে।

স্মার্টফোন, গাড়ি-বাইক সহ প্রযুক্তি দুনিয়ার সব গুরুত্বপূর্ণ খবর সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Google News ও Twitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।