সাবধান, ফোনে আসা KYC আপডেটের মেসেজে ভুলেও ক্লিক করবেন না

ব্যাংকের সঙ্গে জড়িত অনলাইন জালিয়াতির সংখ্যা দিন প্রতিদিন বেড়েই চলেছে। সম্প্রতি পুনের একজন ৬১ বছর বয়সী বৃদ্ধের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ১.১১ লক্ষ টাকা চুরি করে নেওয়া হয়। ঘটনাটি গত শনিবার ঘটেছে এবং পুলিশের তরফ থেকে জানা হয়েছে যে হ্যাকাররা এসএমএসের মাধ্যমে একটি ভুয়ো নম্বর থেকে ওই বৃদ্ধকে ফোন করে কেওয়াইসি আপডেট করানোর কথা বলেছিল। এর একদিন আগে, অর্থাৎ শুক্রবারও এরকম একটি জালিয়াতিতে এক ব্যক্তির ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ১,৯৬,৩৯৩ টাকা চুরি করে নেওয়া হয়েছিল।

সাইবার ক্রিমিনালরা ব্যবহারকারীদের এসএমএসের মাধ্যমে ইলেকট্রনিক্স ওয়ালেট সেকশনের কেওয়াইসি শেষ হয়ে যাওয়ার সতর্কবার্তা পাঠায়। এই এসএমএসে হ্যাকাররা একটি নম্বরও দিয়ে থাকে যাতে কল করলে আপনাকে কেওয়াইসি ফিলাপ করার আবেদন জানানো হয়। এরপরেই গ্রাহকদের হ্যাকাররা নিজের ফাঁদে ফেলে তার কাছ থেকে ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সমস্ত তথ্য জেনে নেয়। এরপর তার অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তারা নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে সরিয়ে নেয়।

এই পুরো কাজটি করার জন্য একটি অ্যাপ্লিকেশনের সাহায্য নেওয়া হয়েছিল যার নাম Quick support App। এই অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করার মাধ্যমে হ্যাকাররা গ্রাহকদের তাদের নিজের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে হ্যাকারের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করার জন্য অনুরোধ করে। এই ধরনের জালিয়াতির ঘটনা আজকাল খুব বেশি হচ্ছে। এই কারণে কিভাবে এই ধরনের জালিয়াতি থেকে বাঁচবেন সে ব্যাপারে আমরা আপনাকে কিছু পদ্ধতি জানাবো-

• ব্যবহারকারীকে জালিয়াতির শিকার করার জন্য সবথেকে বেশি ব্যবহৃত হয় ভুয়ো কল এবং এসএমএস। এই ধরনের ফোন এবং এসএমএস থেকে সতর্ক থাকুন।

• এদের কথায় আপনারা কোনরকম অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করবেন না।

• যদি আপনি ভুল করে অন্য অ্যাপ ডাউনলোড করে ফেলেন তাহলে হ্যাকাররা আপনার অ্যাকাউন্ট কাজ করছে কিনা তা জানার জন্য আপনার কাছ থেকে খুব কম পরিমাণ একটি টাকা ট্রান্সফার করার জন্য বলে। যদি এরকম কোন টাকা ট্রান্সফারের কথা আপনাকে জানানো হয় তাহলে তৎক্ষণাৎ সতর্ক হয়ে যান।

• সাধারণত হ্যাকাররা ব্যাংক ডিটেল ব্যবহার করে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা চুরি করতে পারে। তবে যদি তা না হয় এবং আপনাকে টাকা ট্রান্সফার করার জন্য বলা হয়, কখনোই সেই টাকা তাদের কথায় অন্য ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করবেন না। সরাসরি সেই অ্যাপ্লিকেশনের কন্ট্যাক্ট ফোরামে যোগাযোগ করবেন অথবা স্থানীয় পুলিশ স্টেশনে এবং আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের শাখায় যোগাযোগ করবেন।

স্মার্টফোন, গাড়ি-বাইক সহ প্রযুক্তি দুনিয়ার সব গুরুত্বপূর্ণ খবর সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Google News ও Twitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।