এয়ার পিউরিফায়ার কেনার আগে অবশ্যই মাথায় রাখুন এই বিষয়গুলি, নইলে ঠকবেন

অস্বীকার করার উপায় নেই যে আমরা প্রতিনিয়ত যে পরিবেশে শ্বাস-প্রশ্বাস গ্রহণ করি তার বাতাস আমাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে বিপজ্জনক। আমাদের সুস্থতার পক্ষে বিশুদ্ধ এবং তাজা বাতাসের উপস্থিতি খুব জরুরী। আর সেকারণেই আজকাল বহু মানুষ এয়ার পিউরিফায়ার ব্যবহার করে থাকেন। Air-purifier আমাদের ঘরের বাতাসকে পরিশুদ্ধ রাখে। তবে এয়ার পিউরিফায়ার কেনার সময়ে কতগুলি বিষয়গুলি মনে রাখতে হয়, আসুন জেনে নিই সেগুলি কি কি।

১। নতুন এয়ার পিউরিফায়ার কেনার ক্ষেত্রে ঘরের আয়তনের কথা মাথায় রাখা উচিত। ঘর বড় হলে উচ্চ ক্ষমতার এয়ার পিউরিফায়ার কেনা উচিত। সাধারণ দামের মধ্যে উপলব্ধ পিউরিফায়ারগুলি মূলত মধ্য আকৃতির ঘরের জন্য উপযোগী।

২। বাতাসে ধূলিকণা সহ আরো নানা রকমের দূষিত পদার্থ মিশে থাকতে পারে। তাই নতুন এয়ার পিউরিফায়ার ঘরে আনার আগে তার ফিল্টার সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিতে হবে। সাধারণত হেপা (HEPA), চার্জড মিডিয়া, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও জীবাণুনাশক এবং ইলেক্ট্রোস্ট্যাটিক প্রেসিপিটেটর – বাজারে এই চার ধরণের ফিল্টার যুক্ত পিউরিফায়ার কিনতে পাওয়া যায়। এগুলির সাথে অপেক্ষাকৃত বড় আকৃতির বস্তুকণা পরিশোধনের উপযোগী একটি প্রি-ফিল্টার থাকা প্রয়োজন।

৩। এয়ার পিউরিফায়ার কেনার আগে তার এয়ার চেঞ্জ রেট (Air Change Rate Per Hour – ACH) যাচাই করা প্রয়োজন। কোন ফিল্টার এক ঘন্টায় ঠিক কতবার বাতাস পরিশোধন করে তা তার এয়ার চেঞ্জ রেট থেকে বোঝা যায়। যথাযথ বাতাস পরিশোধনের জন্য ৫ – ৬ এসিএইচ বিশিষ্ট পিউরিফায়ারগুলি যথেষ্ট।

৪। কোন পিউরিফায়ার এক মিনিটে কত কিউবিক ফিট বাতাস পরিশোধন করে তা তার ক্লিন এয়ার ডেলিভারি রেট (Clean Air Delivery Rate) বা CADR এর থেকে জানা যায়। CADR এর অঙ্ক যত বেশী হবে, বাতাসকে বস্তুকণামুক্ত করার ক্ষেত্রে সেই পিউরিফায়ার তত বেশী উপযোগী।

৫। দুর্গন্ধবিহীন পরিশুদ্ধ বাতাসের জন্য পিউরিফায়ারে অ্যাক্টিভেটেড কার্বন লেয়ার থাকা উচিত। এই লেয়ারটি বাতাস থেকে ক্ষতিকারক গ্যাস এবং রাসায়নিককে পৃথক করে।

৬। ইউভি ফিল্ট্রেশন (UV Filtration) বা আয়োনাইজেশন সম্পন্ন এয়ার পিউরিফায়ারের দীর্ঘ ব্যবহারে শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা দেখা দিতে পারে। এটি ওজোন নির্গত করে, তাই এর ব্যবহার থেকে বিরত থাকা উচিত।

৭। এয়ার পিউরিফায়ারগুলিতে বাতাস পরিশোধনের জন্য একটি ফ্যান থাকে। এই ফ্যানগুলি একটানা শব্দ করে যার ফলে আপনার ঘুমের ব্যাঘাত ঘটতে পারে। সুতরাং যে পিউরিফায়ারে এই শব্দ কম, কেনার সময় তাকেই বেছে নেওয়া ভালো।

৮। পিউরিফায়ারের ফিল্টারগুলি নির্দিষ্ট সময় পর পর পরিবর্তন করতে হয়। ফলে ফিল্টারের দাম এবং ব্র্যান্ডের কাস্টমার সার্ভিস সেন্টারের উপস্থিতি সম্পর্কে নিশ্চিত না হয়ে এয়ার পিউরিফায়ার কেনা ঠিক নয়।

৯। নতুন এয়ার পিউরিফায়ার কেনার আগে তার ওয়ারেন্টি সংক্রান্ত টার্মস ও কন্ডিশনগুলি খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে জেনে নিন। ভালো পরিমাণ অর্থের বিনিময়ে পিউরিফায়ার ঘরে আনলে ভালো ব্র্যান্ডের সার্টিফায়েড প্রোডাক্ট কেনাটাই ভালো।

১০। সবশেষে বলতে হয়, আপনার এয়ার পিউরিফায়ারটির ওজন অপেক্ষাকৃত কম হলে ভালো। এর ফলে আপনি এটিকে সহজেই সরাতে বা স্থানান্তরিত করতে সক্ষম হবেন। তাছাড়া পিউরিফায়ারটিতে একিউআই মনিটর (AQI Monitor) আছে কিনা দেখে নিন। একিউআই মনিটর আপনাকে ঘরের বাতাস কতটা পরিশুদ্ধ রয়েছে তা জানিয়ে দেবে।

স্মার্টফোন, গাড়ি-বাইক সহ প্রযুক্তি দুনিয়ার সব গুরুত্বপূর্ণ খবর সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Google News ও Twitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।