আধ ঘন্টায় গাড়ির লোন, বিশ্বে এই প্রথম এত দ্রুত ঋণ প্রদান পরিষেবা লঞ্চ করল HDFC ব্যাঙ্ক

hdfc-bank-launches-30-minute-xpress-car-loan

অনেকেই রয়েছেন যারা নগদ অর্থের বদলে ফাইন্যান্সে গাড়ি কেনাকেই অগ্রাধিকার দিয়ে থাকেন। এজন্য একটি সুবিধাজনক গাড়ির লোনের খোঁজ করতেও দেখা যায়। কিন্তু ঋণ নিতে গিয়ে অনেক ক্ষেত্রেই ঝামেলাই পড়তে হয়। তবে এবার সেই ঝক্কি এড়ানো সম্ভব। দেশের বৃহত্তম বেসরকারি ব্যাঙ্ক এইচডিএফসি (HDFC), গাড়ি কিনতে ইচ্ছুক দেশের এমন সমস্ত গ্রাহকদের জন্য নিয়ে এল ৩০ মিনিটে লোন পরিষেবা। হ্যাঁ, শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি! আবার সম্পূর্ণ পদ্ধতিটি অনলাইনে হওয়ার ফলে আরও সহজ হয়েছে গ্রাহকদের জন্য। এই পরিষেবার নামকরণ করা হয়েছে এক্সপ্রেস কার লোন (Xpress Car Loan)।

সম্প্রতি এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক একটি ডিজিটাল পার্সোনাল লোনের পরিষেবা চালু করেছে। তাদের দাবি এই লোন মাত্র ১০ সেকেন্ডেই পাওয়া যায়। এক্সপ্রেস কার লোনের প্রসঙ্গে এইচডিএফসি ব্যাঙ্কের প্রধান (রিটেইল অ্যাসেট) অরবিন্দ কপিল বলেন, “ডিজিটাল উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক বরাবরই অগ্রণীর ভূমিকা পালন করে থাকে। বর্তমানে আমরা পুরোদস্তুর ডিজিটাল কার লোন আমাদের বিদ্যমান এবং নতুন গ্রাহকদের জন্য নিয়ে এসে এক ধাপ এগিয়ে গিয়েছি।”

কপিল যোগ করেন, “এইচডিএফসি ব্যাঙ্কের এক্সপ্রেস কার লোন হবে একটি স্বয়ংচালিত ঋণ প্রদানের যাত্রা। এই লোন আমাদের শাখা, ডিলারশিপ এবং থার্ড পার্টি সমষ্টিকারী প্ল্যাটফর্ম থেকে পাওয়া যাবে।” সংস্থার দাবি,  শুধু ভারতে নয়, সম্ভবত সমগ্র বিশ্বে ৩০ মিনিটের মধ্যে অনলাইনে লোন প্রদানের পরিষেবা এই প্রথম। প্রাথমিক পর্যায়ে, ২০-৩০% গ্রাহককে ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত এই লোনের সুবিধা দেওয়া হবে। বর্তমানে কেবলমাত্র চার চাকার গাড়ির জন্য  ঋণ দেওয়া হলেও, পরবর্তীতে তা দু’চাকার গাড়ির ক্ষেত্রেও চালু হবে বলে জানানো হয়েছে।

ফি বছর সাড়ে তিন কোটি  গাড়ি বিক্রির মাধ্যমে ভারতী আগামী ৫-৭ বছরের মধ্যে বিশ্বের চতুর্থ থেকে তৃতীয় বৃহত্তম গাড়ি বাজারে পরিণত হতে চলেছে। আগামী ১০ বছরের মধ্যে এ দেশের রাস্তায় ৩৫ কোটি গাড়ি এবং ২৫ কোটি টু-হুইলার চলাচল করবে অনুমান করা হচ্ছে। এই বিপুল সম্ভাবনার জন্যই এইচডিএফসি ব্যাঙ্ক গ্রাহকদের সুবিধার্থে ৩০ মিনিটে অনলাইনে লোনের পরিষেবা নিয়ে এসেছে।

গেম খেলতে এখানে ক্লিক করুন

শুভদীপ টেকগাপে অটোকার বিষয়ক লেখালিখি করে। এর আগে বিভিন্ন পোর্টালের সাথে যুক্ত থাকলেও, অটোকার নিয়ে টেকগাপে তার হাতেখড়ি। দিনকে দিন সে টেকগাপের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে উঠেছে।