এল সালভাদরে ক্রিপ্টোকারেন্সিকে বৈধ ঘোষণা, বিটকয়েন উৎপাদনে ব্যবহার হবে ভূ-তাপীয় শক্তি

সম্প্রতি এল সালভাদর (El Salvador) বিটকয়েনকে (Bitcoin) বিনিময় মুদ্রা হিসেবে বৈধ ঘোষণা করেছে। কোনও দেশে বিটকয়েনকে সরকারিভাবে লেনদেনের মাধ্যম হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার ঘটনা বিশ্বে এই প্রথম। এল সালভাদরের আইনসভায় ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় পাশ হওয়া ওই বিলটি মাস তিনেকের মধ্যে আইনে পরিণত হবে।

কিন্তু বিটকয়েন মাইনিং (Bitcoin Mining) অর্থাৎ বিটকয়েন উৎপাদনের জন্য বিপুল পরিমান বিদ্যুতের প্রয়োজন। ফলে ক্রিপ্টোকারেন্সির দুনিয়া সচল রাখার জন্য মাইনারদের সেই জীবাশ্ম জ্বালানির ওপর নির্ভরশীল থাকতে হয়। ফলে ঘুরে ফিরে চলে আসছে সেই “গ্লোবাল ওয়ার্মিং” বা বিশ্ব উষ্ণায়নের তত্ত্ব৷ কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় জানা গেছে যে, বিটকয়েন মাইনিং করতে প্রতি বছর ১২০ টেরাওয়াট আওয়ার এর বেশি বিদ্যুৎ খরচ হয়।

তবে ক্রিপ্টোকারেন্সি মাইনিং এর জন্য পরিবেশ দূষণ হবে না, আবার সস্তায় পাওয়া যাবে এমন এক অচিরাচিত শক্তির প্রাচুর্য এল সালভাদরে রয়েছে। আর সেই জিওথার্মাল বা ভূ-তাপীয় শক্তি দিয়েই চলবে বিটকয়েন মাইন করার কাজ। এল সালভাদরের প্রেসিডেন্ট নায়িব বুকেলের (Nayib Bukele) টুইট অনুযায়ী, বিটকয়েন মাইনিং করার জন্য চাহিদামতো শক্তি সরবরাহ করতে রাষ্ট্রায়ত্ত ভূতাত্ত্বিক বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

সবার আগে খবর পেতে Google News-এ ফলো করুন