স্মার্টফোন ক্যামেরাকে কাজে লাগিয়ে প্রতি মাসে করা যাবে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত রোজগার! জেনে নিন কীভাবে

বর্তমানে ব্লগিং ভিডিও বানিয়ে প্রচুর রোজগার করা যাচ্ছে। আপনার কাছে যদি স্মার্টফোন থাকে তাহলে সেটির ক্যামেরার চতুরতায় আপনিও এই ধরণের ভিডিও আপলোড করে উপার্জন করতে পারবেন।

জীবনে ভালোভাবে বেঁচে থাকতে গেলে টাকার প্রয়োজনীয়তা যে কতখানি, তা কে না জানে! তার ওপর গত প্রায় দু-বছরেরও বেশি সময় ধরে মারণ ভাইরাস করোনার ভয়াল থাবায় গোটা বিশ্ব জর্জরিত হয়ে থাকার ফলে সকলেই এখন রোজগার তথা টাকার গুরুত্ব হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে। অতিমারীর শুরুর দিকে কেবল ভারতেই নয়, সারা বিশ্বের মানুষ লকডাউনের কারণে বাড়ির মধ্যে আটকা পড়ায় অনেকেই তাদের কাজ হারিয়েছেন, বহু মানুষ চাপে পড়ে তাদের পেশা বদলে ফেলতে বাধ্য হয়েছেন, আর অর্থনীতির চরম টালমাটাল অবস্থার দরুন নতুন কাজ পাওয়ার সম্ভাবনাও একদম ক্ষীণ হয়ে গেছে। ফলে বেশিরভাগ মানুষের কাছেই নতুন কাজ খোঁজা তথা টাকা রোজগারের উপায় সম্পর্কে চিন্তা করাই এখন এককথায় একটা নতুন কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

শুধু চাকরিপ্রার্থীরাই নয়, বরং এখন রোজগেরে মানুষরাও আয়ের দ্বিতীয় উৎসের কথা চিন্তা করছেন। কারণ যেভাবে একের পর এক করোনার ঢেউ এসে সকলকে ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, তাতে চাকরি এখন থাকলেও কতদিন পর্যন্ত যে থাকবে তার তো কোনো নিশ্চয়তা নেই! সেক্ষেত্রে জানিয়ে রাখি, বর্তমান ডিজিটাল যুগে একটি স্মার্টফোন হাতে থাকলেই বিভিন্ন সহজ উপায় অবলম্বন করে আপনি বেশ খানিকটা টাকা রোজগার করতে সক্ষম হবেন। কি, শুনে খুব অবাক হচ্ছেন নাকি? চলুন, তাহলে একটু বিশদেই বলা যাক।

আপনি যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাক্টিভ থাকেন, তবে আপনি অবশ্যই দেখে থাকবেন যে, এখন বেশিরভাগ লোকই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে নিজেদের বানানো ভিডিও পোস্ট করতে থাকেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই ভিডিওগুলি সেই সমস্ত বিষয়গুলিকে কেন্দ্র করে তৈরি করা হয় যা দর্শকদের কাছে খুব পছন্দের। ক্রমাগত এই ভিডিওগুলি দেখতে দেখতে আপনার যদি একবার ধারণা এসে যায় যে দর্শকদের কী ধরনের ভিডিও আকর্ষিত করছে, তাহলে আপনাকে টাকা রোজগারের জন্য আর খুব বেশি পরিশ্রম করতে হবে না। আপনাকে কেবল কয়েক মিনিটের ভিডিও তৈরি করে সেটিকে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে আপলোড করতে হবে, যা আপনি আপনার হাতের মুঠোফোনটির সাহায্যে খুব অনায়াসেই করতে পারেন।

তবে এক্ষেত্রে একটা বিষয় মনে রাখতে হবে যে, এর জন্য আপনার স্মার্টফোনে সেলফি ক্যামেরা থাকা কিন্তু আবশ্যক। কারণ চলতি সময়ে সেলফি ক্যামেরা ভিডিওগুলি দর্শকদের চরমভাবে আকৃষ্ট করছে, এবং তার পাশাপাশি আপনি এই ভিডিওগুলিতে খুব সহজেই ফিল্টারও অ্যাড করতে পারবেন। কিন্তু এখন প্রশ্ন হল, ভিডিও তো তৈরি করবেন, তবে কী বিষয়কে কেন্দ্র করে করবেন যা দর্শককে আপনার ভিডিওটি আবশ্যিকভাবে দেখতে বাধ্য করবে? সে সম্পর্কে আপনাদেরকে জানতে সাহায্য করবে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদন। এখানে আমরা এমন দুটি বিষয় নিয়ে কথা বলব যেগুলি সম্পর্কিত ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়া সাইটে পোস্ট করলে আপনি খুব সহজেই বেশ খানিকটা টাকা পকেটস্থ করতে সক্ষম হবেন।

ফুড ব্লগিং

দুনিয়ায় এমন কোনো জায়গা নেই যেখানে খাদ্যরসিক মানুষের দেখা পাওয়া যাবে না! বেশিরভাগ মানুষই খেতে প্রচণ্ড ভালোবাসেন, কিন্তু তার থেকেও বেশি কীভাবে খাবার তৈরি হচ্ছে তা দেখতে মানুষ বিশেষভাবে পছন্দ করেন। তাই এখন Facebook বা Instagram-এর মতো সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলি খুললেই ফুড ব্লগিংয়ের ঝড় উঠতে দেখা যায়। ব্যবহারকারীরা তাদের প্রিয় খাবার বানানোর পদ্ধতি শেয়ার করে ভালোরকম টাকা রোজগার করছেন এবং বর্তমান প্রচলিত ভাষায় এদেরকে ইনফ্লুয়েন্সার বা ফুড ব্লগার বলা হয়ে থাকে। আপনার মধ্যেও যদি এই ধরনের ভিডিও বানানোর ট্যালেন্ট থাকে, তাহলে আপনিও খুব সহজেই আপনার স্মার্টফোন এবং সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিকে হাতিয়ার করে অনেক টাকা রোজগার করতে পারবেন। আর এক্ষেত্রে বলে রাখি, উপার্জনের পরিমাণটিও কিন্তু নেহাত মন্দ নয়। এই পদ্ধতিতে এখন অনেকেই মাসে ৫০,০০০ টাকা থেকে শুরু করে এক লাখ টাকা পর্যন্ত রোজগার করতে সক্ষম হচ্ছেন।

ট্র্যাভেল ব্লগ

আপনার কী কী করতে সবচেয়ে বেশি ভালোলাগে, এই প্রশ্নের উত্তরে বেশিরভাগ লোকই বলবেন – খেতে আর ঘুরতে। সত্যি কথা বলতে গেলে, খেতে আর ঘুরতে ভালোবাসে না এরকম লোকের দেখা পাওয়া প্রায় অসম্ভব বললেই চলে। তাই খাওয়ার পাশাপাশি ঘুরে বেড়ানোর মাধ্যমেও কিন্তু পকেটে বেশ কিছু টাকা আসতে পারে। আপনি যদি বেড়াতে ভালোবাসেন এবং বিভিন্ন নতুন নতুন অচেনা অদেখা জায়গায় যাওয়ার শখ থাকে, তাহলে এখনকার দিনে ট্র্যাভেল ব্লগের মাধ্যমে আপনি ভালোরকম টাকা রোজগার করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে যা করতে হবে তা হল, আপনি যেখানে বেড়াতে যাচ্ছেন সেখানকার কিছু আকর্ষণীয় ভিডিও আপনার স্মার্টফোনের সাহায্যে ক্যাপচার করুন। এর মধ্যে থাকতে পারে সেই জায়গার স্থানীয় কোনো খাবার, অথবা কোনো বিল্ডিং বা সৌধ কিংবা মূর্তি – অর্থাৎ এমন কিছু জিনিস যা লোকে আগে দেখেনি, এবং আপনার ভিডিওটি দেখে আপনার ভিডিওটির প্রতি এবং সেইসাথে ওই জায়গাটিতে যাওয়ার জন্যও দর্শকরা উৎসাহিত হবে। আপনাদেরকে জানিয়ে রাখি, ইদানীংকালে কিন্তু বেশিরভাগ লোকেই ট্র্যাভেল ব্লগ ব্যাপকভাবে পছন্দ করছে, ফলে বেড়ানোর শখ থাকলে টাকা রোজগারের জন্য আপনি এই পদ্ধতিটি অবলম্বনের কথা ভেবে দেখতে পারেন।

তবে মনে রাখবেন, যেমন তেমন করে ভিডিও বানিয়ে তা আপলোড করলেই চলবে না! এক্ষেত্রে ভিডিও সঠিকভাবে ক্যাপচার করতে হবে, কোয়ালিটি স্পষ্ট হতে হবে, তাছাড়া এডিটিং জাতীয় অন্যান্য বিষয়গুলিও ঠিকঠাক থাকতে হবে। সোজা ভাষায় বললে ভিডিওগুলি চিত্তাকর্ষক হতে হবে।

স্মার্টফোন, গাড়ি-বাইক সহ প্রযুক্তি দুনিয়ার সব গুরুত্বপূর্ণ খবর সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Google News ও Twitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।