এই Smartphone থেকে রয়েছে হাজতবাস হওয়ার ব্যাপক চান্স! ভুল করেও কিনে ফেলবেন না

আন্ডারগ্রাউন্ড মার্কেট বা চোরাবাজার থেকে অনেকেই জিনিস কিনে থাকেন। কিন্তু এই সমস্ত জায়গা থেকে স্মার্টফোন জাতীয় ডিভাইস কেনা অত্যন্ত ঝামেলার কারণ হতে পারে!

প্রিমিয়াম সুবিধাযুক্ত স্মার্টফোন কেনার ইচ্ছা কমবেশি সবারই থাকে, কারণ এগুলিতে নজরকাড়া ডিজাইনের পাশাপাশি আকর্ষণীয় ফিচার পাওয়া যায়। আবার এগুলির পারফরম্যান্সও বেশ শক্তিশালী হয়। তবে মুশকিল হল প্রিমিয়াম স্মার্টফোনের দাম এমনিতে অনেক বেশি হয়, সবাই সেই বাজেট বহন করে উঠতে পারেন না। আর এই সমস্যা এড়াতে অনেকেই আন্ডারগ্রাউন্ড মার্কেটে যান এবং কম টাকায় একটি প্রিমিয়াম স্মার্টফোন কিনে বসেন। কিন্তু তারা বোঝেন না যে এই পদক্ষেপ আদতে কতটা বিপজ্জনক! কারণ, এই বাজারগুলি থেকে স্মার্টফোন কিনলে ক্রেতার জেলে যাওয়ারও সম্ভাবনা থাকে। আসুন এই বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নিই…

কেন আন্ডারগ্রাউন্ড মার্কেট থেকে স্মার্টফোন কেনা উচিত নয়?

আদতে আন্ডারগ্রাউন্ড মার্কেটগুলি সম্পূর্ণ বেআইনি এবং এই মার্কেটগুলিতে বেশিরভাগ যে গ্যাজেটগুলি আসে তা চুরির মাল বা নকল আইটেম। ফলে এসব পণ্য কেনা কখনো কখনো সাধারণ মানুষের জন্য সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। এখানে অনেক সময় এমন স্মার্টফোন কেনা-বেচা হয় যেগুলি বেআইনি কাজের সাথে জড়িত থাকে।

উদাহরণস্বরূপ, যদি কোনো ব্যক্তি এই ধরণের ফোনের মাধ্যমে কাউকে হুমকি দিয়ে থাকে বা যদি সেই ফোনটি চুরি হয়ে যায়, তবে সেটি পুলিশি নজরদারির আওতায় থাকে। পরে যখন এই স্মার্টফোনটি কোনো একজন ব্যক্তির কাছে বিক্রি করা হয় এবং এটি চালু করা হয়, তখন সেই স্মার্টফোন ব্যবহারকারী ব্যক্তি পুলিশের হাতে ধরা পড়ে।

এই ধরণের স্মার্টফোনগুলো কী দামে বিক্রি হয়?

এই আন্ডারগ্রাউন্ড মার্কেটগুলিতে অত্যন্ত দামী স্মার্টফোনও ১০,০০০ টাকা থেকে ২০,০০০ টাকা পর্যন্ত সস্তা দামে বিক্রি হয়। এই লোভে মানুষ সাত পাঁচ না ভেবেই স্মার্টফোন কিনে নেয় এবং অপ্রত্যাশিত সমস্যার সাথে জড়িয়ে পড়ে!

স্মার্টফোন, গাড়ি-বাইক সহ প্রযুক্তি দুনিয়ার সব গুরুত্বপূর্ণ খবর সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Google News ও Twitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।