ইনস্টাগ্রামে প্রোডাক্ট বিক্রির টোপ! নতুন পদ্ধতিতে সর্বস্বান্ত হতে পারেন আপনি

দিনে একবারের জন্যে হলেও সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে ঘোরাঘুরি করেননা – বর্তমানে এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া বেশ মুশকিল! কিন্তু এই
সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলির ভালো দিক যেমন রয়েছে তেমনই রয়েছে ক্ষতিকর প্রভাব। ইন্টারনেট ইউজাররা স্প্যামিং বা হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছেন কিংবা বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন বা প্ল্যাটফর্ম থেকে হয়রানি হওয়ার সম্ভাবনা আছে এমন কথাও আকছার শোনা যায়। তবে এবার এই ধরণের কেলেঙ্কারিতে নাম জড়ালো জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম Instagram-এর। সম্প্রতি ভারতের সাইবার সিকিউরিটি টিম CERT-In জানিয়েছে, ফেসবুকের মালিকানাধীন ফটো/ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্মটি থেকে ইউজারদের ফাঁদে ফেলার চেষ্টা করছে স্ক্যামাররা।

CERT-In একটি টুইট পোস্টে জানিয়েছে, Instagram অ্যাপটিকে হাতিয়ার করে কিছু স্ক্যামার ফিশিং ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে এবং ইউজারদের প্রলুব্ধ করে চলেছে। ওই টুইটটিতে CERT-In একটি ছবিও শেয়ার করেছে, যেখানে ইনস্টাগ্রাম থেকে স্ক্যাম কীভাবে ঘটছে তা ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

ছবি – CERT-In

রিপোর্ট অনুযায়ী, প্রথমে দুরাভিসন্ধীরা কোনো ইনস্টাগ্রাম ইউজারকে টার্গেট করে তার সাথে DM বা ডিরেক্ট মেসেজের মাধ্যমে যোগাযোগ করে। ওই মেসেজ কোনো ছবি বা প্রোডাক্ট বিক্রির কথা বলা হবে। পাশাপাশি ওই মেসেজে একটি লিঙ্ক থাকে যেখানে স্ক্যামস্টাররা ক্লিক করতে বলে। ইউজাররা সাত-পাঁচ না ভেবে ওই লিঙ্কে ক্লিক করার সাথে সাথেই তার ইমেল অ্যাকাউন্টের অ্যাক্সেস বা নিয়ন্ত্রণ হারাতে পারেন।

ভিক্টিমের ইমেল অ্যাকাউন্টের অ্যাক্সেস পাওয়ার পর স্ক্যামাররা ওই ইমেলের সাথে সংযুক্ত অন্যান্য অনলাইন পরিষেবাগুলির অ্যাক্সেস পাওয়ার চেষ্টা করে। স্ক্যামাররা প্রয়োজনে ভিক্টিমকে ব্ল্যাকমেইল করতে পারে অথবা তাদের শিকারের ফ্রেন্ড লিস্টে থাকা অন্যান্য ইউজারের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টাও করে।

গেম খেলতে এখানে ক্লিক করুন

A person who enjoys creating, buying, testing, evaluating and learning about new technology.