BSNL এর ব্রডব্যান্ড বা ল্যান্ডলাইন কানেকশন নেবেন? লাগবে না কোনো ইনস্টলেশন খরচ

নতুন ল্যান্ডলাইন বা ব্রডব্যান্ড কানেকশন নেওয়ার কথা ভাবছেন? তবে দেরী না করে চটপট রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিএসএনএলের(BSNL) হাত ধরে ফেলুন! সম্প্রতি সংস্থাটির পক্ষ থেকে উপভোক্তাদের বিনামূল্যে নতুন ল্যান্ডলাইন সংযোগ ইনস্টল করে দেওয়ার কথা শোনা গিয়েছে। এছাড়া বিদ্যমান ল্যান্ডলাইনের অধিকারী যে কোনো ব্যক্তি নতুন ব্রডব্যান্ড সংযোগ নিতে ইচ্ছুক হলে, ইনস্টল খরচ হিসেবে সংস্থা তার কাছ থেকে কোনোরকম টাকাপয়সা নেবে না। এক্ষেত্রে গ্রাহকের বেশ কিছু টাকা সাশ্রয় হবে।

BSNL এর ল্যান্ডলাইন বা ব্রডব্যান্ড কানেকশন‌ বিনামূল্যে ইনস্টল করা যাবে

বিএসএনএলের বিনামূল্যে নতুন ল্যান্ডলাইন ও ব্রডব্যান্ড সংযোগ দেওয়ার ঘোষণা কার্যকর হবে আগামী ৫ই আগস্ট, ২০২১ থেকে। এর পরবর্তী ৯০ দিন অর্থাৎ চলতি বছরের ২১শে নভেম্বর পর্যন্ত আমজনতা এই অফারের সুবিধা গ্রহণে সমর্থ হবেন। অবগতির জন্য জানিয়ে রাখি, এই মুহূর্তে ব্রডব্যান্ড পরিষেবা সরবরাহের ক্ষেত্রে দেশে বিএসএনএল সংস্থাটির ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। টেলিকম পরিষেবা প্রদানকারী হিসেবে দেশের প্রথম সারির টেলকো গুলির সাথে প্রতিযোগিতায় এঁটে উঠতে না পারলেও, সংস্থাটির ব্রডব্যান্ড ব্যবসা রিলায়েন্স জিও‌ (Reliance) বা এয়ারটেলের(Airtel) থেকে বৃহত্তর। সংস্থাটির নয়া অফার যে এই ব্যবসার আরো শ্রীবৃদ্ধি করবে, সে আশা করাই যায়।

এতদিন পর্যন্ত নতুন ল্যান্ডলাইন ও ব্রডব্যান্ড সংযোগ প্রদানের জন্য BSNL ইনস্টল খরচ বাবদ আলাদা করে ২৫০ টাকা দাবী করতো। আবার নতুন ভারত ফাইবার (Bharat Fiber) সংযোগের জন্য গ্রাহকেরা সংস্থাটিকে ইনস্টল খরচ হিসেবে ৫০০ টাকা দিতে বাধ্য ছিলেন। কিন্তু নতুন ল্যান্ডলাইন সংযোগ গ্রহণের ক্ষেত্রে এবার থেকে সংস্থাটিকে আমাদের কোনরকম মূল্য পরিশোধের প্রয়োজন নেই। তেমনই ল্যান্ডলাইন কানেকশন বিদ্যমান থাকলে নতুন ব্রডব্যান্ড সংযোগ গ্রহণের জন্যেও সংস্থাকে কোন মাশুল দিতে হবেনা।

উল্লেখ্য, কেরালা-টেলিকম (KeralaTelecom) সাইটটি বিএসএনএলের নয়া চমকপ্রদ অফারটির কথা সর্বপ্রথম সামনে আনে। পরে অফারের সুযোগ-সুবিধাগুলির কথা বিবেচিত হওয়ায় তা উপভোক্তা-মহলে সাড়া ফেলে দেয়। দেশের বেসরকারি ইন্টারনেট পরিষেবা সরবরাহকারী সংস্থাগুলি যখন তাদের ফাইবার ব্যবসাকে উত্তরোত্তর সম্প্রসারিত করতে চাইছে, সেই সময় বিএসএনএলের আলোচ্য অফারটি যে বেশ দূরদৃষ্টির পরিচয় বহনকারী, সেটা মানতেই হবে।

তবে ইনস্টল খরচ বাবদ রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাকে কোনো টাকা দিতে না হলেও, আলাদা আলাদা দ্রুততায় নতুন সংযোগ ব্যবহারের জন্য দরকারি মোডেম (Modem) ক্রেতাদের দাম দিয়েই কিনতে হবে। এক্ষেত্রে গ্রাহক যেমন পরিষেবা চাইবেন, তার উপরের মোডেমের দাম নির্ভর করবে। যেমন, ১০০ এমবিপিএস (Mbps) দ্রুততায় সংযোগ ব্যবহারের জন্য ২.৪ ও ৫ গিগাহার্টজ(GHz) ওয়াইফাই-নেটওয়ার্ক সহায়ক ডুয়াল-ব্যান্ড রাউটার প্রয়োজন হবে। এভাবে গ্রাহক চাইলে ৩০০ এমবিপিএস (Mbps) দ্রুততা বিশিষ্ট কানেকশনও বেছে নিতে পারেন। নতুন সংযোগ গ্রহণের পর প্রথম মাসের বিল পরিশোধের সময় উপভোক্তারা বিনামূল্যে পরিষেবা ইনস্টলের ফায়দা ওঠাতে পারবেন।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

সবার আগে খবর পেতে Google News-এ ফলো করুন