5G-র তুলনায় ৫০ গুন দ্রুত 6G, জানালো Samsung

বর্তমানে বিশ্বের প্রায় সর্বত্র 5G (৫জি) নেটওয়ার্কের উন্নয়নের কাজ জোরকদমে চলছে। গোটা বিশ্ববাসী 5G নেটওয়ার্ক টেকনোলজি আস্বাদনের আশায় অধীর আগ্রহে দিন গুনছে। তবে এর মধ্যেই কয়েকটি দেশ ও প্রযুক্তি সংস্থা 6G (৬জি) ট্রায়ালও শুরু করে দিয়েছে। এদের মধ্যে অন্যতম হল দক্ষিণ কোরিয়ার বহুজাতিক সংস্থা Samsung, এবং সম্প্রতি বিশ্ববাসীর জন্য তারা এই প্রসঙ্গে একটি দারুণ সুখবরও নিয়ে এসেছে। সংস্থাটি দাবি করেছে যে, তারা ৫জি-এর তুলনায় ৬জি-তে ৫০ গুণ দ্রুত এবং ফলপ্রদ গতি (স্পিড) অর্জন করেছে। নতুন ৫জি ট্রান্সমিশন ইকুইপমেন্ট নিয়ে Samsung-এর উপস্থাপনায় Samsung Electronics-এর নেটওয়ার্ক বিজনেসের প্রোডাক্ট স্ট্র্যাটেজির হেড, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ওনিল রোহ এই তথ্য প্রকাশ করেছেন।

6G নিয়ে কাজ শুরু করল Samsung

Samsung Electronics-এর নেটওয়ার্ক বিজনেসের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং অ্যাডভান্সড কমিউনিকেশনস রিসার্চের হেড সুংহিউন চোই বলেছেন যে, ৬জি বর্তমান প্রযুক্তির সাথে মিলিতভাবে একটি সম্পূর্ণ নতুন জগৎ উন্মুক্ত করতে চলেছে যা উদীয়মান এক্সপেরিয়েন্স এবং সার্ভিসগুলিকে নতুন রূপ দেবে। তিনি আরও বলেছেন যে, Samsung Electronics খুব শীঘ্রই গ্রাহকদের জন্য ৬জি টেকনোলজিকে বাস্তবায়িত করতে চরমভাবে উৎসাহী। এছাড়াও, তিনি টেরাহার্জ কমিউনিকেশনস প্রদর্শন করেছেন যা Samsung-এর ৬জি প্রোগ্রেসের একটি প্রমাণ।

তবে কি খুব শীঘ্রই Samsung, 6G নিয়ে আসছে

যেহেতু পুরো বিশ্ব বর্তমানে ৫জি নেটওয়ার্ক মোতায়েনের দিকে নজর রাখছে, তাই এর মাঝে Samsung, 6G-কে হাতিয়ার করে সবার নজর কাড়ার চেষ্টা করছে। যেহেতু ৫জি-এর উন্নয়ন এখনও বিকাশের পর্যায়ে রয়েছে, তাই স্যামসাংয়ের ৬জি নেটওয়ার্কের আগমনের বিষয়ে এখনই নিশ্চিতভাবে কিছু বলা খুব মুশকিল। এবিষয়ে Samsung একটি হোয়াইট পেপার (সরকারী ইস্তাহার বা বিবৃতি) রিলিজ করেছে, যেখানে ৬জি নেটওয়ার্কের রোলআউট সম্পর্কিত বিস্তারিত বিবরণের উল্লেখ রয়েছে।

স্যামসাংয়ের হোয়াইট পেপারে বলা হয়েছে যে, সংস্থাটি ২০২৮ সালের প্রথম দিকে ৬জি-এর কাজ শেষ এবং বাণিজ্যিকীকরণের আশা করছে। তবে গণ বাণিজ্যিকীকরণ (mass commercialisation) ২০৩০-এর আশেপাশে ঘটতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। চোই তার বিবৃতিতে বলেছেন যে, স্যামসাং অত্যন্ত আগ্রহ সহকারে AI, রোবোটিক্স, ভিজ্যুয়াল টেকনোলজির সমস্ত দিকগুলি অত্যন্ত নিখুঁতভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। Samsung Electronics-এর গ্লোবাল সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং-এর ইভিপি হেড উজুন কিম জানিয়েছেন যে, স্যামসাং ভারতের বৃহত্তম একক ভার্চুয়ালাইজড কোর নেটওয়ার্ক পরিচালনা করে, যার শত শত মিলিয়ন গ্রাহককে সাপোর্ট করার ক্ষমতা রয়েছে। তাই বিশ্ববাসীর অধীর আগ্রহের তালিকায় ৫জি-র পর ৬জি-র নামও অন্তর্ভুক্ত হল বলে ধরে নেওয়া যায়।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

স্মার্টফোন, গাড়ি-বাইক সহ প্রযুক্তি দুনিয়ার সব গুরুত্বপূর্ণ খবর সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Google News ও Twitter পেজ, সঙ্গে অ্যাপ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।